সোমবার, ২১ জুন ২০২১, ১২:৫৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
গাজীপুর মহানগরের ১৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী আব্দুস সোবাহান সকলের দোয়া চায় ব্যাংকে ঋণ থাকা অবস্থায় ব্যবসায়ীর মৃত্যু: ৯ বছর পর চাপে ভুক্তভোগী পরিবার মাগুরায় ৮ দিন পর যুবকের মস্তকবিহীন লাশের মাথা ও পা উদ্ধার গাজীপুরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্কুল কলেজ খোলার জন্য মানববন্ধন। মাগুরায় পরিত্যক্ত পুকুরে মিললো যুবকের টুকরো টুকরো লাশ বশেমুরবিপ্রবিতে শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ, স্বেচ্ছায় অব্যহতি গাজীপুরে ভোগরা বাইপাসে স্ট্রোকে আম বিক্রেতার মৃত্যু গাজীপুরে সড়ক দূর্ঘটনায় গার্মেন্টস শ্রমিকের মৃত্যু শেরপুরে নকল সোনার বারসহ ২ প্রতারক গ্রেফতার কাল থেকে ৭ দিনের জন্য কঠোর লকডাউন চাঁপাইনবাবগঞ্জে

অমুক্তিযোদ্ধাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফনের অভিযোগ স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের

মোঃ জিলহাজ বাবু

চাঁপাইনবাবগঞ্জে এক অমুক্তিযোদ্ধাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফনের অভিযোগ তুলেছেন স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধারা।তবে স্থানীয় প্রশাসন এ আভিযোগ অস্বীকার করেছে। শহরের বড় ইন্দারা মোড় এলাকার শাহজাহান আলী মিয়া(পচু হাজি)র মৃত্যর পর গত সোমবার তাঁকে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফনের পর সাবেক সহকারী কমান্ডার মোহাম্মদ তরিকুল ইসলাম মাস্টার ২১ জন বীর মুক্তিযোদ্ধার স্বাক্ষর করা একটি অভিযোগ জেলা প্রশাসকের
নিকট জমা দেন। বুধবার বিকেলে এ অভিযোগ দেন তাঁরা।

এ সময় এ ঘটনার নিন্দা জানিয়েছেন স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধারা। এর আগে বুধবার দুপুরে চাঁপাইনবাবগঞ্জ মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে জরুরী সভায় এ ঘটনার প্রতিবাদ জানানো হয়।সভায় মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক জেলা কমান্ডার মো.আলাউদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক তরিকুল আলম,রুহুল আমীন,জয়নাল আবেদিন সহ বিভিন্ন ইউনিয়নের মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডাররা সভায় উপস্থিত ছিলেন।

সভা শেষে ২১ জন বীর মুক্তিযোদ্ধা স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়,শাহজাহান মিয়া কোন মুক্তিযোদ্ধাই ছিলেন না।বরং তিনি মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধে অবস্থান নেন।এমন একজন মুক্তিযুদ্ধ বিরোধীর মরদেহ জাতীয় পতাকায় মুড়ে রাষ্টীয় মর্যাদা দিয়ে পতাকার অবমাননা করা হয়েছে।এছাড়া মর্যাদা প্রদানের জন্য কোন বীর মুক্তিযোদ্ধা বা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডারকে জানানো হয়নি এবং সেখানে মুক্তিযোদ্ধা কেউ উপস্থিত ছিলেন না বলে জানান।

এ ব্যাপারে জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক তরিকুল আলম জানান মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রনালয় প্রকাশিত মুক্তিযোদ্ধাদের দুটি তালিকার একটিতেও মো.শাহজাহান মিয়ার নাম নেই।

এ ব্যাপারে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(ইউএনও) নাজমুল ইসলাম সরকার জানান সরকারি গেজেটে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে মো.শাহজাহান মিয়ার নাম আছে।তাই বিধি মোতাবেক উনাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদা দেওয়া হয়েছে।
অপরদিকে মো.শাহজাহান মিয়ার ছোট ছেলে মো.আলী আসগার বলেন,স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধাদের এ বক্তব্য সম্পূর্ণ মিথ্যা।

তবে তাঁর পিতা কোথায় মুক্তিযুদ্ধ করেছেন এ প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন সেটা আমি জানি না।আমি তখন নাবালক ছিলাম। তাঁর বড় ভাইয়ের সঙ্গে কথা বলতে চাইলে তিনি বলেন,উনি (বড় ভাই) এখন অসুস্থ কথা বলতে পারবেন না।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ

Spoken English কোর্স