সোমবার, ০২ অগাস্ট ২০২১, ০৯:০৮ পূর্বাহ্ন

করোনা আশঙ্কায় শিক্ষার্থী শূন্য জবির ক্লাসরুম
জবি প্রতিনিধি / ১২৯ ভিউ
সর্বশেষ আপডেট : সোমবার, ০২ অগাস্ট ২০২১

করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) ক্লাস বর্জন করেছে শিক্ষার্থীরা। ফলে শিক্ষার্থীশূণ্য রয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শ্রেণীকক্ষগুলো।

সোমবার (১৬ মার্চ) সরেজমিনে দেখা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় সব বিভাগেই ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করেছে শিক্ষার্থীরা। মনোবিজ্ঞান, ভূগোল ও পরিবেশ ও রসায়ন বিভাগের কয়েকটি ব্যাচের শিক্ষার্থীরা আজ ক্লাসে অংশ নিলেও কাল থেকে বর্জন করবে বলে জানান তারা। এছাড়াও পদার্থবিজ্ঞান ৪র্থ বর্ষ এবং গণিত বিভাগ প্রথমবর্ষ পরীক্ষায় অংশ নিলেও কোনো ব্যাচের ক্লাস হয়নি বিভাগগুলোতে। এছাড়া সকল বিভাগেই ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধ রয়েছে।

মার্কেটিং বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ড. মোঃ হুমায়ন কবীর চৌধুরী বলেন, আমাদের বিভাগে সকাল থেকে কোনো ক্লাস হয়নি। শিক্ষার্থীরা না আসলে আমরা কিভাবে ক্লাস নিবো। শিক্ষার্থীরা আসলে আমরা ক্লাস নিবো।

অর্থনীতি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ড. হাবিবুর রহমান বলেন, ক্লাস বন্ধের বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন কোনো সিদ্ধান্ত জানাইনি। তবে সকাল থেকে আমাদের বিভাগে শিক্ষার্থী না থাকায় ক্লাস হয়নি।

গোটা ক্যাম্পাসজুড়েও শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি হাতেগোনা। ক্যাম্পাসের চিরচেনা ব্যস্ত জায়গাগুলোও রয়েছে ফাঁকা। ভাস্কর্য চত্বর, কাঁঠালতলা, মাসুক চত্বর, বিবিএ ভবনে নিচ তলায় নেই শিক্ষার্থীদের আড্ডা।

ক্লাস বর্জনের প্রভাব পড়েছে ক্যাফেটেরিয়া, টিএসসি ও ক্যাম্পাসের আশেপাশের খাবার দোকানগুলোতে। সকাল থেকেই ফাঁকা রয়েছে ক্যাফেটেরিয়া ও টিএসসি। টিএসসিতে কয়েকটি দোকান খোলা থাকলে নেই, কাস্টমার। ক্যাফেটেরিয়াতে নেই খাবারের জন্য শিক্ষার্থীদের দীর্ঘলাইন।

টিএসসির চা বিক্রেতা মাসুদ মিয়া বলেন, দোকান খুলে বসে আছি। কাস্টমার নাই, ব্যবসা চলছে না।

ক্যাফেটেরিয়ার পরিচালক মাসুদ বলেন, প্রতিদিনের মত শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি নাই। সকাল থেকেই ফাঁকা ক্যাফেটেরিয়া। নাম মাত্র বেচাঁকেনা হচ্ছে।

এরআগে রোববার (১৬ মার্চ) ক্লাস বর্জনের বিষয়ে বৈঠকে বসেন ক্লাস রিপ্রেজেন্টেটিভ ও ছাত্র নেতারা। পরে সর্বসম্মতিক্রমে ক্লাস বর্জনের সিদ্ধান্ত নেন তারা।

সার্বিক বিষয়ে জবির ৭ দফা আন্দোলনের সংগঠক তাওসীব সোহান বলেন, মাত্র ৭ একর জায়গায় প্রায় ২০ হাজার শিক্ষার্থী। তারপর হল না থাকায় সবাই পুরান ঢাকার এই ঘিঞ্জি পরিবেশে থাকে, পাশে সদরঘাট থেকে হাজার-হাজার মনানুষ প্রতিদিন আসছে। সবমিলিয়ে করোনা ঝুঁকিতে জবি শিক্ষার্থীরা বেশি। এসব বিবেচনায় আমরা ক্লাস রিপ্রেজেন্টটেটিভদের সাথে আলোচনা করে ক্লাস বর্জনের সিদ্ধান্ত নিই। শিক্ষার্থীরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করেছে। দুই-একটা ডিপার্টমেন্ট ক্লাসে গেলেও আগামীকাল তারাও বর্জন করবে বলে আমাদের জানিয়েছে।

শিক্ষার্থীদের ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন ও প্রশাসনের সিদ্ধান্তের বিষয়ে জানতে চাইলে উপাচার্য ড. মীজানুর রহমান বলেন, ছাত্ররা যদি নিজেই না আসে তাহলেতো ক্লাস হবে না। এটাতো জবির ঘটনা না, বন্ধ করতে হলে সারাদেশেই করতে হবে। বন্ধ যদি করতেই হয় সরকারের মনিটারিং সেল আছে সময়মতো তারা সিদ্ধান্ত দিবে। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের একক কোনো সিদ্ধান্ত দেওয়ার সুযোগ নেই, সামগ্রিক ভাবে সিদ্ধান্ত দিতে হবে।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Shares