সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ০১:৩৫ পূর্বাহ্ন

করোনা পরিস্থিতিতে দিশেহারা দেশ, লকডাউনেও চলছে ব্রীজের কাজ !

রাজবাড়ী প্রতিনিধি

সারা দেশে করোনা ভাইরাস মহামারী আকার ধারন করেছে। এ সময় রাজবাড়ী জেলাকে লকডাউন করেছে জেলা প্রশাসন। দেশে জরুরী অবস্থা ঘোষনা করেছে স্বাস্থ্য বিভাগ। রাজবাড়ীতেও মোট এ পর্যন্ত ৬ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে।

এ ভয়াবহ পরিস্থিতিতেও থেমে নেই রাজবাড়ী –বালিয়াকান্দি মধুখালি সড়কের সড়ক ও জনপদের কাজ রাজবাড়ী, পাবনা, মানিকগঞ্জসহ বিভিন্ন জেলার শ্রমিক দিয়ে চলছে ব্রীজ নির্মাণের কাজ।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, বিভিন্ন জেলা থেকে আগত শ্রমিকেরা স্বাস্থ্য বিধি না মেনে ও নিরাপদ দূরুত্ব বজায় না রেখেই করছে ব্রীজ নির্মাণের কাজ। সেখানে থাকা ঠিকাদার কোম্পানির পিএম মোঃ সেলিম জানান,আমরা বালিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাহী অফিসারের অনুমতিপত্র নিয়েই কাজ করছি। কিন্তু কোন অনুমতিপত্র তিনি দেখাতে পারেন নি। সেখানে সড়ক ও জনপদের কোন কর্মকর্তাকে দেখা যায়নি।

এ বিষয়ে বালিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাহী অফিসার এর নিকট জানতে চাইলে তিনি জানান, ব্রীজ এর বাইপয়াস সড়ক দেবে গেছে বলে কোম্পানি একটি আবেদন করলে শুধু বাইপাস সড়কের কাজের অনুমতি দেওয়া হয় আরো ১৫ দিন আগে। কিন্তু মূল ব্রীজের কাজ করার অনুমতি দেওয়া হয়নি।

দেশে করোনা পরিস্থিতিতে সরকারি নিয়ম অমান্য করে স্বাস্থ্যবিধি না মেনে কাজ করে যাচ্ছে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান।
সংশ্লিষ্ট্য সূত্রে জানাগেছে, ২৫ কোটি টাকা মূল্যের রাজবাড়ী –বালিয়াকান্দি মধুখালি সড়কের সড়ক ও জনপদের তিনটি ব্রীজ এর কাজ ১০% লেসে পায় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মাইনুদ্দীন বাশি (যশোড়) । সেই কাজ কিনে নেন বাংলাদেশে শাওমি মোবাইল কোম্পানির ডিলার মজিবর আরি। ঠিকাদারি পেশায় তার তেমন কোন অভিজ্ঞতা নেই । অন্যের কাজ কিনে নিয়ে কাজ করছিলো।

এর আগে এই ব্রীজ ভেকু দিয়ে ব্রীজ ভাঙ্গার সময় অসচেতন ও অনভিজ্ঞতার কারনে গত রোববার (২৪ নভেম্বর) দুপুর আড়াইটার দিকে ২ শিক্ষার্থী সহ ৫ জন মারাত্নক আহত হয়। আহতদের রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
আহতরা হলোঃ বেকু চালক বানিবহের লোকমানের ছেলে হাসান (২৫), হেলপার মহিরউদ্দিনের ছেলে রুহুল আমিন (২০), শ্রমিক এন্তাজউদ্দিনের ছেলে আব্দুল হালিম (৫০)। এছাড়াও শাকিল (১৮) ও ইমরান (১৪) নামে দুই শিক্ষার্থী আহত হয়েছেন।

২৪শে নভেম্বর দুপুরে বেকু দিয়ে ব্রিজটি ভাঙার সময় ব্রিজ ভেঙে ও বেকু উল্টে চালক, হেলপার ও এক শ্রমিক এবং ব্রীজ ভাঙা দেখতে আসা ২ শিক্ষার্থী আহত হয়। পরে তাদের উদ্ধার করে আশঙ্কাজনক অবস্থায় রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ বিষয়ে সড়ক ও জনপদের নির্বাহী প্রকৌশলী জানান, ব্রীজের পাশে ডাইভারশন রাস্তা মেরামতের অনুমতি দিয়েছিলেন যেন করোনা পরিস্থিতিতে কোন উপজেলার সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন না হয়। আমি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সাথে কথা বলে এখনি কাজ বন্ধ করার ব্যাবস্থা করছি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ