শুক্রবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৭:২২ অপরাহ্ন

করোনা ভাইরাসের আতংক চা শ্রমিকদের

সবুজ আহমদ জয়, সিলেট সদর প্রতিনিধি

সিলেটের লাক্কারতুড়া চা বাগানে চা শ্রমিকদের ছুটি চেয়ে মানব বন্ধন করেছেন কয়েকজন সাধারন শ্রমিকের ছেলে মেয়েরাসহ কয়েকজন শ্রমিক মিলে এই মানববন্ধন করেন আজ ২৭ মার্চ সকাল ১১ টায়। এ সময় সকলে কাজে চলে গেলেউ ব্যানার সাইন বোর্ড টানিয়ে দাঁড়িয়ে থাকেন একজন।

করোনা ভাইরাস এখন বিশ্বের আতংকের নাম যে কারণে এক দেশ থেকে আরেক দেশ লকডাউন করা হচ্ছে।
বাংলাদেশেউ লকডাউন হয়েছে অফিস আদালত বন্ধ দিয়ে সাধারন ছুটি ঘোষণা দিয়েছে সরকার কিন্তু সাধারন চা শ্রমিকদের দেয়া হয়নি সাধারন কোন ছুটি।

তারা করোনা আতংকের মধ্যে নিজেদের কাজ করে যেতে হচ্ছে। তারই প্রতিবাদ করতে আজ সকালে কয়েকজন শ্রমিকের ছেলেরা মানব বন্ধন করেন।

এসময় কয়েকজন তাদের বক্তব্যে বলেন বাংলাদেশের প্রতিটি সরকারি বেসরকারি কর্মকর্তা কর্মচারি সবার সাময়িক ছুটি ঘোষণা করছেন সরকার। কিন্তু আমরা কেটে খাওয়া দিন মজুর চা শ্রমিকরা কেন সাধারন ছুটি পাইনা কেন আমার দিন মজুর মা বাবা ছুটি পাবে নাহ।

সারাদেশের মানুষকে হোম কোয়ারেন্টাইন থাকার নির্দেশ দিয়েছেন সরকার,
তাহলে চা শ্রমিকরা কেন এর বিপরীতে থাকবে।
তার সম্পুর্ন উল্টো চিত্র দেখা যায় আমাদের দেশের চা শ্রমিক মানুষের বেলায়।

তারা এখন ও প্রতিদিন কাজ করে যাচ্ছে, যেখানে করোনা ভাইরাসের জন্য সারা দেশের মানুষ হোম কোয়ারান্টাইন তখন তারা বাগানের কাজে।
তারা এসময় এসব কথা বলেন।

তারা এখানো সরকার থেকে ছুটির ঘোষণা পায়নি,তাই তাদের মধ্যে দেখা দিয়েছে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের আতংক।

চা শ্রমিক মানুষ গুলো প্রতিদিন করোনা ভাইরাসের আতংক নিয়ে কাজে যেতে হচ্ছে। যে কারণে তারা ছুটির আবেদন করে মানব বন্ধন করেছে।

এতে আরও একজন চা শ্রমিক সন্তান দেভাশীষ গোয়ালা দেব বলেন আমরা সব সময় করোনা ভাইরাস নিয়ে আতংকে থাকি, আমরা ছুটির ঘোষণা পায়নি এখন আমরা সরকারের কাছে আবেদন করছি সরকারি ভাবে যেন আমাদের ছুটির ঘোষণা করেন।
আমরা পুলিশ প্রশাসনের এবং চা শ্রমিকদের নেতার দৃষ্টি আকর্ষন করে বলতে চাই আমাদেরকে সাধারন ছুটি দেয়া হউক।

আরেকজন চা শ্রমিক মিঠন চন্দ্র বলেন আমরা ১০২ টাকা রোজে কাজ করি আমরা যদি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হই তা হলে চিকিৎসা করার মতো টাকা আমাদের নেই আমরা বিনা চিকিৎসায় মারা যাবো।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ