শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১১:২১ অপরাহ্ন

কর্মহীন ১২ হাজার পরিবারের পাশে মাসুদ চৌধুরী

চৌগাছা (যশোর) অফিস

মানবতার মা জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডাকে সাড়া দিয়ে কর্মহীন, অসহায়, হত-দরিদ্র মানুষের পাশে দাড়িয়েছেন চৌগাছা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ফুলসারা ইউপি চেয়ারম্যান মেহেদী মাসুদ চৌধুরী। খাদ্য সামগ্রী নিয়ে তিনি ছুটে চলেছেন মানুষের দোর গোড়ায়। নিজের জীবনের কথা চিন্তা না করে প্রতিদিনই খাদ্য সামগ্রী নিয়ে ছুটে চলেছেন উপজেলার প্রত্যন্ত গ্রাম অঞ্চলে। এ পর্যন্ত তিনি প্রায় ১২’হাজার পরিবারের পাশে দাড়িয়েছেন। উপজেলা পর্যায়ে মফস্বল নেতার জীবন বাজি রেখে এমন কার্মকান্ডে সাধুবাদ জানিয়েছেন এলাকাবাসি।

মহামারি করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় ২০ তম দিনে সচেতনা বৃদ্ধি ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ চলমান রয়েছে। সোমবার সকাল ৯ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত উপজেলার ফুলসারা ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে ৬’শ ক্ষতিগ্রস্থ কর্মহীন মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী চাল, ডাল, আলু, মিষ্টি কুমড়া, পটোল ও খাবার স্যালাইন বিতরণ করা হয়। উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী মাসুদ চৌধুরী খাদ্যের গাড়ি বহর নিয়ে প্রতিটি স্থানে উপস্থিত থেকে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন।

খাদ্য সামগ্রী বিতরণের সময় অসহায়দের চোখে মুখে ফুটে ওঠে খুশির হাসি। তারা খাদ্য পেয়ে সাধারণ সম্পাদককে কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানান। এক প্রতিক্রিয়ায় বোরাক (৭২), ভানু বিবি (৮০) জানান, এই খাদ্য সামগ্রী পেয়ে আমরা খুবই খুশি। কাজকর্ম নেই। বাড়িতে বসে সময় কাটাচ্ছি। আমাদের মতো গরীবদের আর কে খোজ রাখে। এমন সংকটময় মুহুর্তে আওয়ামীলীগ নেতা আমাদের যে খাদ্য দিলেন তা মনে রাখার মতো। তারা বলেন এই খাদ্যে আমাদের ৩/৪ দিন চলবে। কিন্তু সেটা বড় কথা না। তিনি নিজে উপস্থিত থেকে আমাদের যেভাবে সাহস জোগালেন তাতে মনটি ভরে গেলো।

খাদ্য বিতরণের সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অবাইদুল ইসলাম সবুজ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজনীন নাহার পপি, সিংহঝুলী ইউপি চেয়ারম্যান ইব্রাহিম খলিল বাদল। এছাড়া স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক শামীম রেজা, ফুড ফর লাইফের আহবায়ক মারুহ আহমেদ রাব্বি, সদস্য আল-আমিন, বাপ্পি, শরিফুল ইসলাম, মাহাবুর রহমান, রিয়াজ, মেহেদী, সালমান প্রমুখ।

খাদ্য সামগ্রী বিতরণ কালে এক প্রতিক্রিয়ায় মেহেদী মাসুদ চৌধুরী বলেন, করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় আমার উপজেলার মানুষের পাশে শেষ নিঃশ্বাস থাকা পর্যন্ত আমি আছি। যতদিন পর্যন্ত এই মহামারি থাকবে আমি কাউকে খাদ্যাভাবে কষ্ট পেতে দেবনা। আমার উপজেলার প্রত্যেকটি মানুষ আমার ভাই-বোন। আমি তাদের কষ্টে পাশে দাড়িয়ে তাদের কষ্ট লাঘব করতে পারবো না। কিন্তু তাদের কষ্টের ভাগিদার তো হতে পারবো। তিনি আরো বলেন নিজ অর্থায়নে আমার সাধ্যমত নিয়মিত খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করছি। করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় জনগণের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি করছি। তিনি পাশের বাড়ির কর্মহীন পরিবারের খোজ খবর নিয়ে তাকে জানানোর আহবান জানান। একই সাথে বিত্তবানদের সহযোগিতা কামনা করেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ