শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ১২:৩৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
রপ্তানি আয়ের অন্যতম উৎস হবে আম: কৃষিমন্ত্রী খাবার না থাকলে আমাকে জানান, আমি বাড়ি বাড়ি খাবার পৌছে দিব: এমপি আনার অমুক্তিযোদ্ধাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফনের অভিযোগ স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের কমলগঞ্জে হিন্দু ছাত্র পরিষদের দ্বিবার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত ময়মন‌সিং‌হের শম্ভুগ‌ঞ্জে প্রায় শতা‌ধিক দোকানে ধর্মঘট শেরপুরের শ্রীবরদীতে ১’শ পিস ইয়াবাসহ যুবক গ্রেফতার সাংসদ কন্যা ডরিন এর নেতৃত্বে রোজা রেখেও দৃষ্টি প্রতিবন্ধী এক কৃষকের ধান কেটে দিয়েছে ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ করোনা সঙ্কটে আবারো অসহায় মানুষের পাশে সাংসদ কন্যা ডরিন সাভারে দুই নারী ধর্ষণের শিকার, আটক ২ ভারত বাংলাদেশ সীমান্তে তিস্তায় ডুবে একজনের মৃত্যু

কাপড়ের হাট সপ্তাহে দু’দিন খোলা রাখার দাবীতে শাহজাদপুরে বিক্ষোভ

রাকিব মাহমুদ, শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি

বাংলাদেশের অন্যতম বৃহৎ ও ঐতিহ্যবাহী সিরাজগঞ্জ জেলার শাহজাদপুরের কাপড়ের হাট সপ্তাহে নির্দিষ্ট দুদিন করার দাবিতে শাহজাদপুর ও আশেপাশের এলাকার তাঁতীরা বিক্ষোভ মিছিল করে।

বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাসে সারা বিশ্ব যেখানে স্থবির হয়ে পড়েছে সেখানে নিজেদের স্বাস্থ্য ঝুকি নিয়ে শাহজাদপুরের তাঁতীরা তাদের ন্যায্য দাবী ও অধিকার আদায়ের জন্য বিক্ষোভ মিছিল বের করে।সিরাজগঞ্জের প্রাণকেন্দ্র বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ এর স্মৃতি বিজড়িত শাহজাদপুরে রবীন্দ্র কুঠি বাড়ির পাশেই অবস্থান এই বিখ্যাত ঐতিহ্যবাহী কাপড়ের হাটের।

শাহজাদপুর উপজেলা সহ আশেপাশের কয়েকটি উপজেলার জীবীকা নির্বাহের একটি অন্যতম ও প্রধান মাধ্যম হলো এই তাঁত।এই এলাকার বেশিরভাগ মানুষই এই তাঁত পেশার সাথে জড়িত।করোনার এই পরিস্থিতিতে শাহজাদপুরের অর্থনীতির মূল চাবিকাঠি এই তাঁত শিল্প বন্ধ থাকায় এই পেশার সাথে জড়িত বেশিরভাগ মানুষ দূর্বিসহ জীবন যাপন করছে।

শনিবার দুপুরে শাহজাদপুরের প্রাণ কেন্দ্র দ্বারিয়াপুর কাপড়ের হাট থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়।মিছিলটি উপজেলা চত্বর হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করেন।করোনার এই মহামারীর সময় স্বাস্থ্য ঝুকি নিয়ে মিছিল বের করার সম্পর্কে জানতে চাইলে তারা বলেন অনেকটা বাধ্য হয়ে তারা এই বিক্ষোভ মিছিল করছে।

এ সময় কয়েকজন তাঁতীর সাথে কথা বলে জানা যায়, বাংলাদেশের বৃহত্তম এই শাহজাদপুরের কাপড়ের হাটটি প্রতিষ্ঠালগ্নে সপ্তাহের বৃহস্পতি ও সোমবারে মোট দু’দিন এই কাপড়ের হাট বসত।

কিন্তু এখন আগের দিন অর্থাৎ বুধবার ও রবিবার রাতে কাপড় বিক্রি শুরু করে। কিছুদিন পর পূর্বের ন্যায় আবারো আগের দিন শনিবার ও মঙ্গলবার থেকেই কাপড় বিক্রি শুরু করে কিছু ব্যবসায়ী। ফলে হাটের দিন আরো বৃদ্ধি পেয়ে শনিবার, রবিবার, সোমবার ও মঙ্গলবার এই চারদিনে রূপ নেয়। এতে করে বিক্রয় না বাড়লেও হাটের খরচ দিগুন হয়ে যায়।

যার ফলে হাটটি হারাতে বসেছে নিজস্ব ঐতিহ্য ও আর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে কাপড় ব্যবসায়ী ও তাঁতীরা। একদিকে কর্মচারীর বিল দিতে হচ্ছে অতিরিক্ত, ইজারাদারদের খাজনাও দিতে হচ্ছে দিগুন অপরদিকে গুটি কয়েক মানুষের হাতে বন্দী হয়ে যাচ্ছে শাহজাদপুরের কাপড়ের হাট। করোনার এই পরিস্থিতিতে দীর্ঘ মেয়াদী ক্ষতির হাত থেকে বাঁচাতে এবং তাঁতীদের রক্ষার্থে চারদিনের পরিবর্তে সপ্তাহে পূর্বের ন্যায় নির্দিষ্ট দুইদিন হাট চালু করা ও তাদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহন করার জোঁড় দাবী জানিয়েছে স্থানীয় তাঁতী ও কাপড় ব্যবসায়ীরা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ

Spoken English কোর্স