বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ১১:৪৬ অপরাহ্ন

খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ৫০০ কেজি চাল উদ্ধার , এক নারীর কারাদণ্ড

মো. বিল্লাল হোসাইন, জামালপুর

জামালপুরের মেলান্দহে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ৫০০ কেজি চাল ক্রয় ও সংরক্ষনের অপরাধে জাহানারা বেগম নামে একজনকে ২০ দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। দন্ডপ্রাপ্ত জাহানারা বেগম উপজেলার নাংলা ইউনিয়নের আবুল কাশেমের স্ত্রী।

বুধবার দুপুরে ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তামীম আল ইয়ামীন এ রায় দেন।

ভ্রাম্যমান আদালত সুত্র জানায়, বুধবার ১৫ এপ্রিল দুপুরে জামালপুরের মেলান্দহ উপজেলার নাংলা ইউনিয়নের হরিপুর গ্রামের আবুল কাশেমের বাড়ি থেকে এই চাল উদ্ধার করেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তামিম আল ইয়ামীন। গরিবের ১০ টাকা কেজি দরের সরকারি চাল কেনা ও সংরক্ষণের অপরাধে আবুল কাশেমের স্ত্রী জাহানারা বেগমকে এ দণ্ডাদেশ দেওয়া হয়। সেই সাথে চালচোর সিন্ডিকেট ধরতে গঠিত হয়েছে ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি।

জানা গেছে, খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ডিলার নাংলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ হতদরিদ্রদের কাছে সম্প্রতি ১০ টাকা কেজি এই চাল বিক্রি করেন। এদের মধ্যে হতদরিদ্র নামক ভিআইপি কার্ডধারীদের কাছ থেকে ৫০০ কেজি চাল জাহানারা বেগম কিনে নেন। এই চাল কেনার সাথে চাল ব্যবসায়ী আলআমীনের যোগসাজস রয়েছে। সরকারি চাল সংরক্ষণের খবর পেয়ে অভিযানে যান ভ্রাম্যমাণ আদালত। দুপুর আড়াই টার সময় জাহানারার বাড়ি থেকে ৫০০ কেজি চাল উদ্ধার করেছে।

পরে বিকেল ৫টার দিকে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে জাহানারা বেগমকে ২০ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ডাদেশ দেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তামিম আল ইয়ামীন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তামিম আল ইয়ামীন জানান, জাহানারা বেগম খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির চাল বাড়িতে সংরক্ষণ করেছেন। যে-বা যারাই তাকে দিয়ে কেনাক না কেন, চালগুলো যেহেতু তার বাড়িতে পাওয়া গেছে সে-অপরাধেই তাকে ২০ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। সেই সাথে এ ঘটনার সাথে জড়িত চালচোর সিন্ডিকেট ধরতে ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ

Spoken English কোর্স