বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:৪৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
তাহিরপুরে অজ্ঞাত বৃদ্ধার ঠিকানা খুঁজছে এলাকাবাসী নিবন্ধন না থাকায় সাভারে বিভিন্ন হোটেল ও রেস্টুরেন্টকে ১ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা জরিমানা আশুলিয়ায় স্কুল পড়ুয়া কিশোরকে পিটিয়ে হত্যা, সাভারে ২ জনের লাশ উদ্ধার পাটগ্রামে ভারতীয় শাড়ী ও কসমেটিক্স সহ আটক ২ নৌকার মাঝি মোহাম্মদ আলী, ধানের শীষ হাতে সাইফুল আলম বরগুনায় গণপূর্ত বিভাগের জলাশয় অবৈধভাবে দখল করে মাছ চাষ বগুড়ায় ভাতিজার লাঠির আঘাতে চাচার মৃত্যু ঘোড়াঘাটে বালু বোঝাই ট্রাকে ফেন্সিডিলসহ গ্রেফতার ২ সাভারে টায়ার পুড়িয়ে পরিবেশ দূষণ, ৫টি কারখানা গুড়িয়ে দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত মন্ত্রণালয়ের কোন কর্মকর্তা কর্মচারী দুর্নীতি করলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা: অতিরিক্ত সচিব

গোপালগঞ্জে পুলিশ সদস্য করোনা আক্রান্ত, থানার সবাই হোম কোয়ারেন্টাইনে

ডেক্স রিপোর্ট

গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর থানায় কর্মরত এক কনস্টেবল আক্রান্ত হয়েছেন করোনা ভাইরাসে। যে কারণে ওই থানায় কর্মরত ৬৬ জন পুলিশ সদস্যকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

এর মধ্যে ওই থানার ওসি ও সেকেন্ড অফিসার নিজের বাসায় হোম কোয়ারেন্টানে রয়েছেন বলে জানা গেছে।
পাশাপাশি ২৮ জন এসআই ও এএসআই এবং ৩৭ জন কনস্টেবল সরকারি মুকসুদপুর ডিগ্রি কলেজে হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন। শনিবার মুকসুদপুর থানার সবাইকে হোম কোয়ারেন্টাইনের বিষয়টি তদারকি করেছেন গোপালগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ আসলাম খান।

মুকসুদপুর থানার সেকেন্ড অফিসার এস.আই মিজানুর রহমান জানান, থানায় কর্মরত মহিউদ্দিন নামক একজন কনস্টেবল গত ১ এপ্রিল সর্দি, জ্বর ও কাশিতে আক্রান্ত হন। গত ৬ এপ্রিল ছুটি নিয়ে তিনি নিজ বাড়িতে যান। তার বাড়ি মানিকগঞ্জ জেলার শিবালয় উপজেলার উথুলী ইউনিয়নের বীরবাসাইল কলাবাগান গ্রামে। মানিকগঞ্জ জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ তার নমূনা সংগ্রহ করে ঢাকা পাঠায়।

শুক্রবার সন্ধ্যায় মানিকগঞ্জ জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ রিপোর্ট পেয়ে তার করোনা পজিটিভ বলে নিশ্চিত করেন। ফলে শুক্রবার রাত থেকেই মুকসুদপুর থানায় কর্মরত ৬৬ জনকে ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টাইনে নেয়া হয়েছে।

মুকসুদপুর থানার ওসি মীর মোঃ সাজেদুর রহমান জানান, তারা ৬৬ জন হোম কোয়ারেন্টাইন শুরু করেছেন। তিনি আরও জানান থানা সচল রাখার উদ্দেশ্যে ইতি মধ্যে এ থানায় অন্য জায়গা থেকে এসআই, এএসআই ও কনস্টেবল যোগদান করেছেন। সদ্য যোগদানকৃতরাই আপাতত থানা চালাবেন।

গোপালগঞ্জের সিভিল সার্জন নিয়াজ মোহাম্মদ জানান, ওই থানার সবাই হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন। আমরা ১ দিনে ১২ জনের নমুনা সংগ্রহ করতে পারি। তাই হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা ১২ জনের নমুনা সংগ্রহ করে শনিবার ঢাকা পাঠানো হয়েছে। পর্যায়ক্রমে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা পুলিশ সদস্যদের সবার নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকা পাঠানো হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ