শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১১:১১ পূর্বাহ্ন

চাঁদপুরে লক ডাউন মানছে না কেউ

মো.মজিবুর রহমান, চাঁদপুর সংবাদদাতা

সারা বিশ্বে চলমান করোনা পরিস্থিতি দিন দিন মাত্রাতিরিক্ত হারে বাড়ছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে নানাবিধ পন্থা অবলম্বন করছে সরকার। স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকেও নেয়া হচ্ছে নানা উদ্যোগ। করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় ঘরে বসেই লড়াই করার জন্য জোর দেয়া হলেও তা মানতে নারাজ চাঁদপুর জেলার হাজীগঞ্জ উপজেলার সাধারণ জনগন। দিনের শুরু হতেই নিত্যদিনের মতো ভীড় বাড়তে দেখা গেছে হাজীগঞ্জের বিভিন্ন মহল্লা ও বাজার গুলোতে। চায়ের দোকান না থাকলেও গণজমায়েত করতে দেখা যায় উপজেলা জুড়ে।

আজ হাজীগঞ্জ বাজার এলাকার ক্ষুদ্র পরিবহনগুলোর যাতায়াত ছিল অন্যান্য সাধারণ দিনের মতো। সামাজিক দুরুত্ব বজায় রাখার নির্দেশনাটি যেন কারও মাথায় নেই। এমতাবস্থায় স্বাস্থ্যঝুকি নিয়েই নিত্য প্রয়োজনীয় কাজ সম্পাদন করছেন মানুষ।

কর্মমূখী খেটে খাওয়া মানুষগুলোর জন্য কিছুটা সুবিধাজনক হলেও স্বাস্থ্যের বিষয়টি মানছে না কেউই। এদিকে অবাধে চলাফেরার বিষয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কাজ করলেও নিত্যপণ্যের প্রয়োজনীতার দোহাই দিয়ে ঘোরাফেরা থাকছেই। আবার অনেকে শ্যাম্পু কেনা, দোকানের টাকা পরিশোধ করার মতো হাস্যকর অজুহাত দেখিয়ে করছেন বাজারে ঘোরাফেরা। অবাধ চলাফেরা নিয়ন্ত্রনে প্রতিটি পাড়া মহল্লায় দুপুর দুইটা পর্যন্ত মুদি দোকান খোলা রাখার নির্দেশনা দিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন । তবে তোয়াক্কা না করে বাজারমুখী হয়ে উঠছে মানুষ।

এদিকে সন্ধ্যা ছয়টার পর বাইরে কেউ অবস্থান করতে পারবে না এমন নির্দেশনার ঠিক বিকল্প হিসেবে দিনের বেলা মানুষের আড্ডায় মেতে উঠতে দেখা দেখে অনেক এলাকায়। কখনও কোন এলাকায় পুলিশের টহল থাকলেও পুলিশ চলে গেলে আবারও জমে উঠছে আড্ডা।

সুশীল সমাজের প্রতিনিধিগণ জানাচ্ছেন, করোনার প্রাণঘাতি বিষয়টি বিবেচনায় এনে জনগনকে সচেতন করতে এবং নিরাপদ রাখতে আপ্রান চেষ্টা চালাচ্ছে সরকার। কিন্তু সাধারণ জনগন নিজেদের দায়বদ্ধতার জায়গা থেকে বিষয়টি গ্রহন করছে না। নাগরিক যদি নিজেরা দায়িত্ব পালন না করে তবে এর সংক্রমণ থেকে বাঁচা সম্ভব না। আর প্রশাসনের একার পক্ষে জনসমাগম রোধ করা সম্ভব না।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ