শনিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২০, ০৫:৪৯ অপরাহ্ন

চাঁপাইনবাবগঞ্জে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ৩২ লক্ষ টাকার চাঁদাবাজির মামলা

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার মহারাজপুর ইউপি চেয়ারম্যান এজাবুল হক বুলির বিরুদ্ধে ৩২ লাখ টাকা চাঁদা দাবির অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করেছেন একই ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ নেতা মো. কামাল উদ্দীন। অভিযুক্ত এজাবুল হক বুলি মহারাজপুর ভগবানপুরের মৃত তাজমুল পাইকারের ছেলে। গত ১২ এপ্রিল কামাল উদ্দীন চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর মডেল থানায় এ মামলা দায়ের করেন।

মামলার এজাহারে তার মেলার মোড়ের অফিস থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে ইউনিয়ন পরিষদে আঁটকিয়ে রেখে মারধর ও ১ লাখ ৫২ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়ারও অভিযোগ করা হয়েছে। ইউপি চেয়ারম্যান বুলি ছাড়াও এ মামলায় মহারাজপুর হিন্দুপাড়ার মৃত নূর ইসলামের ছেলে লিটন মেম্বার, ভগবানপুরের মো. এনামুল হকের ছেলে মো. আহাদ, তিলিক চাঁদপুরের মৃত রিয়াজউদ্দীনের ছেলে মো. লতিব, শেখপাড়ার মৃত আফজালের ছেলে মো. শুকুদ্দি, বালুবাগানের মৃত সাবজাদের ছেলে মো. কামাল, আমনুরা চাত্রাপাড়ার আবুল কাশেমের ছেলে মো. জুয়েল, শেখপাড়ার মৃত কবিরের ছেলে মো. রাব্বিকুলসহ আরো ১০/১২ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়েছে।

বাদী কামাল উদ্দীন মামলার এজাহারে উল্লেখ করেন, মামলার ১ নং আসামি ইউপি চেয়ারম্যান এজাবুল হক বুলি কয়েকদিন আগে তার কাছ থেকে ৩২ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। দাবিকৃত চাঁদা না দিলে তাকে স্বাভাবিকভাবে চলাফেরায় বাধাসহ প্রাণনাশেরও হুমকি দিয়ে আসছিলেন। একপর্যায়ে গত ১১ এপ্রিল দুপুর ২টার দিকে মহারাজপুর মেলার মোড়ের তার অফিসে বুলি চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে প্রায় ২০ জন লোক দলবদ্ধ হয়ে লাঠি, লাদনা, লোহার রড ও ধারালো হাসুয়া নিয়ে অনধিকার প্রবেশ করে তার কাছে ৩২ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। তিনি চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে বুলি চেয়ারম্যানের হুকুমে তার লোকজন তাকে জোর করে মহারাজপুর ইউনিয়ন পরিষদে নিয়ে গিয়ে চাঁদা দাবি করে এবং মারধর করে। এ সময় তার কাছে থাকা ১ লাখ ৫২ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেন বুলি চেয়ারম্যান।

মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. কবির হোসেন। তিনি বলেন, মামলাটি নথিভুক্ত করে তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে এসআই সমর চন্দ্র আচার্যকে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ