শুক্রবার, ০৭ মে ২০২১, ০২:১৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
রপ্তানি আয়ের অন্যতম উৎস হবে আম: কৃষিমন্ত্রী খাবার না থাকলে আমাকে জানান, আমি বাড়ি বাড়ি খাবার পৌছে দিব: এমপি আনার অমুক্তিযোদ্ধাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফনের অভিযোগ স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের কমলগঞ্জে হিন্দু ছাত্র পরিষদের দ্বিবার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত ময়মন‌সিং‌হের শম্ভুগ‌ঞ্জে প্রায় শতা‌ধিক দোকানে ধর্মঘট শেরপুরের শ্রীবরদীতে ১’শ পিস ইয়াবাসহ যুবক গ্রেফতার সাংসদ কন্যা ডরিন এর নেতৃত্বে রোজা রেখেও দৃষ্টি প্রতিবন্ধী এক কৃষকের ধান কেটে দিয়েছে ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ করোনা সঙ্কটে আবারো অসহায় মানুষের পাশে সাংসদ কন্যা ডরিন সাভারে দুই নারী ধর্ষণের শিকার, আটক ২ ভারত বাংলাদেশ সীমান্তে তিস্তায় ডুবে একজনের মৃত্যু

জনসচেতনতার অভাবে যশোরে বাড়ছে করোনা রোগী

মোরশেদ আলম, যশোর ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি

প্রতিদিনই বাড়ছে যশোরে করোনা রোগীর সংখ্যা, যেন এমন মনে হচ্ছে এটা করোনার লাগামহীন দৌড়।বিগত কয়েকদিনের যবিপ্রবির ল্যাবের করোনা তথ্য থেকে দেখা যায় এখনও খুব একটা নিয়ন্ত্রণে নাই যশোরে করোনার প্রভাব।

যশোরে করোনার এমন প্রভাব এর জন্য সচেতন মহল মনে করেন জনসচেতনতা না থাকার কারনে যশোরে করোনা খুব একটা নিয়ন্ত্রণে আসছে না। বিগত কয়েকদিনের যবিপ্রবির ল্যাবের তথ্য দেখলে বুঝা যাবে এটা কতটা ভয়ং রূপ ধারণ করেছে। তাই সবগুলো না হলেও কিছু তথ্য তুলে দেয়া হলো।

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) জিনোম সেন্টারে ২৫ আগস্ট ঘোষিত করোনার টেস্টের ফলাফলে যশোরের ১২৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৩৮ জনের পজিটিভ ফলাফল পাওয়া যায়। ২৪ আগস্ট (সোমবার) তারিখ ঘোষিত করোনার টেস্টের ফলাফলে যশোরের ১৪১ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৪৩ জনের করোনা পজেটিভ। ২৩ আগস্ট ঘোষিত করোনার টেস্টের ফলাফলে যশোরের ২১৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৬৫ জনের করোনা পজেটিভ।

২২ আগস্ট(শনিবার) সকালে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জিনোম সেন্টারে যশোর জেলার ১৮৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৭৭ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। ২১ আগস্ট(শুক্রবার) যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জিনোম সেন্টারে যশোর জেলার ১০৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৪৪ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। সব মিলিয়ে দেখা যায় যশোরে নতুন এবং পুরানো মিলিয়ে তিনহাজারের আশেপাশে করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। যেটা যশোর বাসীর জন্য দুশ্চিন্তার একটি বিষয়।কেউ যানে না করোনার এই ভয়াল থাবা কবে শেষ হবে।

এজন্য সচেতন মহলের দাবি যতদিন এই দুর্দিন না কাটে ততদিন ডাক্তারের পরামর্শ মেনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকা, মাস্ক ব্যবহার করা প্রভৃতি নিয়ম মেনে চলতে হবে।কারন এই মহাবিপদ থেকে আমাদের রক্ষা করতে পারে সৃষ্টিকর্তা এবং নিজেদের সচেতনতা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ

Spoken English কোর্স