সোমবার, ০৮ মার্চ ২০২১, ০২:১৯ পূর্বাহ্ন

জামালপুরে ইউএনওসহ আরো ১৩ জন আক্রান্ত, আক্রান্ত বেড়ে ১৯৩

মো. বিল্লাল হোসাইন, জামালপুর

জামালপুরে ইসলামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ ঈদের দিন আরো ১৩ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে দাদি-নাতি, একজন করোনাজয়ী ডিপ্লোমা চিকিৎসকের সাত বছর বয়সের ছেলে ও একজন নারী স্বাস্থ্যকর্মীর সাড়ে তিন বছরের ছেলে রয়েছে। এ নিয়ে জেলায় আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ১৯৩ জন।

সোমবার ২৩ মে রাতে এতথ্য নিশ্চিত করেন জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। নতুন করে জামালপুরের চারটি উপজেলায় মোট ১৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়। জামালপুরের শেখ হাসিনা মেডিক্যাল কলেজের পিসিআর ল্যাবে ৩৫ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১১ জনের ও ময়মনসিংহ পিসিআর ল্যাবে ১২৪ জনের নমুনা পরীক্ষায় দুজনের করোনা পজেটিভ আসে। তাদের মধ্যে জামালপুর সদর উপজেলায় চারজন, জেলার সরিষাবাড়ী উপজেলায় পাঁচজন, ইসলামপুর উপজেলায় তিনজন ও দেওয়ানগঞ্জ উপজেলায় একজন রয়েছেন।

আক্রান্তরা হলেন, জামালপুর সদর উপজেলায় শনাক্ত চারজনের মধ্যে ঘোড়াধাপ ইউনিয়নের ৬০ বছর বয়সের এক নারী ও তার এক নাতি (১৬) রয়েছে। এছাড়া মেষ্টা ইউনিয়নের এক যুবক (২৫) ও দিগপাইত ইউনিয়নের খুপিবাড়ী গ্রামে নায়রণগঞ্জ থেকে বাড়িতে আসা এক যুবকের (৩০) করোনা সনাক্ত হয়েছে ।

সরিষাবাড়ী উপজেলায় পৌরসভার শিমলাবাজার এলাকার এক ব্যক্তি (৪৫), মাইজাবাড়ি গ্রামে গাজিপুর থেকে আসা এক যুবক (২২), বলারদিয়ার গ্রামের একজন (৩৭) ও ফুলবাড়িয়া গ্রামের এক নারী (৪২) ও পোগলদিঘা গ্রামের এক ব্যক্তি (৩৫) আক্রান্ত।

ইসলামপুর উপজেলায় আক্রান্ত তিনজনের একজন হচ্ছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (৩২)। অন্যদের মধ্যে রয়েছেন গোয়ালেরচর ইউনিয়নের পোড়ারচর কমিউনিটি ক্লিনিকের একজন নারী স্বাস্থ্যকর্মীর (সিএইচসিপি) সাড়ে তিন বছর বয়সের শিশু ও ইসলামপুর পৌরসভার কিংজাল্লা গ্রামে ঢাকা থেকে বাড়িতে আসা একজন ব্যবসায়ী (২৮)।

দেওয়ানগঞ্জ উপজেলায় সাত বছর বয়সের এক শিশু করোনায় আক্রান্ত হয়েছে । সে করোনাজয়ী দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা হাসপাতালের একজন ডিপ্লোমা চিকিৎসকের (স্যাকমো) ছেলে।

জামালপুরের সিভিল সার্জন ডা. প্রণয় কান্তি দাস জানান, নতুন করে আক্রান্ত সরিষাবাড়ী উপজেলার একজন নারীসহ পাঁচজন, দেওয়ানগঞ্জের এক শিশু এবং জামালপুর সদরের চারজনের মধ্যে তিনজনকে প্রাতিষ্ঠানিক আইনোলেশন সেন্টারে ভর্তির প্রক্রিয়া চলছে। এছাড়া জামালপুর সদরের একজন ও ইসলামপুরের ইউএনওসহ তিনজনকে তাদের বাসায় আইসোলেশনে রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে। নতুন করে আক্রান্ত এই ১৩ জনের সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের শনাক্ত করে তাদের প্রত্যেকের নমুনা সংগ্রহ করে ল্যাবে পাঠানো হবে।

এ পর্যন্ত জেলায় সর্বমোট আক্রান্ত ১৯৩ জন। সদরে ৫৯, মেলান্দহ ৪৮, ইসলামপুর ৩০, সরিষাবাড়ী ১৮, মাদারগঞ্জ ১৩, বকশীগঞ্জ ১৪ ও দেওয়ানগঞ্জ ১১ জন। সর্বমোট মৃত্যু ৪ জন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২ জন, দেওয়ানগঞ্জ ১ ও মেলান্দহ ১ জন । মৃতের নমুনায় ২ জন ইসলামপুরের। সর্বমোট সুস্থ ৯৫ জন।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ

Spoken English কোর্স