মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ০৬:০৬ পূর্বাহ্ন

জামালপুরে চিকিৎসকসহ আক্রান্ত ১১, মোট আক্রান্ত ১২৭

মো. বিল্লাল হোসাইন, জামালপুর

জামালপুরে নতুন করে আরো ১১ জনের শরীরে করোনার সংক্রমন পাওয়া গেছে। এদের মধ্যে মেলান্দহের ৫ জন, সদরের ৩ জন, সরিষাবাড়ীর ২ জন ও বকশীগঞ্জের ১ জন। এ নিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ১২৭ জন।

জামালপুর ল্যাবের নমুনা পরীক্ষায় শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজের একজন সহকারী অধ্যাপকসহ ৩ জন ও ময়মনসিংহ ল্যাবের নমুনায় ৮ জনসহ মোট ১১ জনের নমুনা পরীক্ষায় করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে।  রোববার ১৭ মে রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করেন জামালপুরের সিভিল সার্জন ডাঃ প্রণয় কান্তি দাস।

আক্রান্তরা হলেন সদরের জামালপুর শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজের ৫২ বছর বয়সী একজন সহকারী অধ্যাপক। শহরের একটি মোবাইলের দোকানের ২৯ বছর বয়সী টেকনিশিয়ান। তার বাড়ি শহরের কাচারী পাড়া ফকির পাড়ায় এবং ঢাকায় কর্মরত ৪৩ বছর বয়সী একজন পুলিশ সদস্য। আক্রান্ত পুলিশ সদস্যের বাড়ি জামালপুরের সীমান্ত সংলগ্ন শেরপুরে বলাইয়ের চর গ্রামে। তিনি জামালপুর সদরে নমুনা জমা দিয়েছিলেন মেলান্দহের আদিপৈত গ্রামের ৫৭ বছর বয়সী একজন পল্লী চিকিৎসক। নাগের পাড়া গ্রামে বসবাসকারী একটি ওষুধ কোম্পানির মেডিকেল প্রমোশন অফিসার। তার বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায়। নয়ানগর ইউনিয়নের দাগী কমিউনিটি ক্লিনিকের ৩৫ বছর বয়সী সিএইচসিপি। মেলান্দহ হাসপাতালের ২৮ বছর বয়সী চতুর্থ শ্রেণির একজন কর্মচারী। বন্ধরৌহা কমিউনিটি ক্লিনিকের নারী সিএইচসিপির ৭ বছর বয়সী শিশু কন্যা।

সরিষাবাড়িতে আক্রান্ত সরিষাবাড়ি হাসপাতাল এলাকার প্রগ্রেসিভ ডেন্টাল কেয়ারের স্বত্বাধিকারী ৫৫ বছর বয়সী ব্যক্তি। তার বাড়ি বলারদিয়ার গ্রামে। অপরজন ওই প্রতিষ্ঠানের ২৪ বছর বয়সী কর্মচারী। তার বাড়ি ধানাটা এলাকায়।
বকশীগঞ্জে সারমারা ইউনিয়নের গোপালপুর গ্রামের ৬০ বছর বয়সী এক ব্যক্তি।

সিভিল সার্জন আরো জানান, জেলায় এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ১২৭ জন। এদের মাঝে সদরে ৪৫, ইসলামপুরে ২৫, মেলান্দহে ১৬, মাদারগঞ্জে ১৩, সরিষাবাড়ী ১১, বকশীগঞ্জে ৯, দেওয়ানগঞ্জে ৮ জন। এদের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৬৩ জন, মারা গেছে ৩ জন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় দেওয়ানগঞ্জের ১ জন, মৃতের নমুনায় সনাক্ত ইসলামপুরের ২ জন।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ