সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ০৬:৫১ পূর্বাহ্ন

জামালপুরে বাবা-ছেলে ও চিকিৎসকসহ নতুন আক্রান্ত ১২, মৃত্যু ১

মো. বিল্লাল হোসাইন, জামালপুর

জামালপুরে বাবা-ছেলে ও চিকিৎসকসহ আরো ১২ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় আক্রান্ত বেড়ে ১৬৯ জন হলো। এছাড়া করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন আরো একজন।

বৃহস্পতিবার ২১ মে রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করেন জামালপুরের সিভিল সার্জন ডা. প্রণয় কান্তি দাস। তিনি জানান, জামালপুরের শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাব থেকে পাঠানো রিপোর্টে ওই ১২ জনের করোনা পজিটিভ আসে। এর মধ্যে নয়জন মেলান্দহ উপজেলার, দুইজন সদরের ও একজন ইসলামপুরের বাসিন্দা।

নতুন আক্রান্তদের মধ্যে সদর হাসপাতালের একজন চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক, ইসলামপুর হাসপাতালের ল্যাব টেকনিশিয়ান ও আরেক স্বাস্থ্যকর্মী রয়েছেন।

মেলান্দহে আক্রান্তরা হলেন- পৌরসভার নাগেরপাড়া গ্রামের এক বৃদ্ধ ও তার ছেলে, পৌরসভার উত্তর আদিপৈত গ্রামের এক যুবক, একই গ্রামের আরেকজন, সরদারবাড়ি এলাকার এক যুবক, নয়ানগর ইউপির সাধুপুর কমিউনিটি ক্লিনিকের নারী সিএইচসিপি, একই ইউপির ফুলছেন্না গ্রামের এক বৃদ্ধ, কুলিয়া ইউপির ভালুকা গ্রামের একজন নারী এবং অজ্ঞাত একজন।

জামালপুরের সিভিল সার্জন ডা. প্রণয় কান্তি দাস জানান, ১৯ মে মেলান্দহ উপজেলার ঝাউগড়া ইউপির কাপাসহাটিয়া গ্রামের ৫৫ বছর বয়সী এক ব্যক্তির করোনা পজিটিভ আসে। ২০ মে তাকে জামালপুরের শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসোলেশনে নেয়া হয়। তবে অবস্থার অবনতি হওয়ায় ওই দিনই ময়মনসিংহ এসকে হাসপাতালের আইসোলেশনে পাঠান চিকিৎসকরা। সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার বিকেলে তিনি মারা যান। তার মরদেহ আইইডিসিআর এর নিয়ম মেনে মেলান্দহে দাফন করা হবে।

তিনি আরো জানান, জামালপুরে এনিয়ে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মোট ৪ জনের মৃত্যু হলো। এদের মধ্যে ইসলামপুরের ২ নারীর মৃত্যুর পর নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হয়েছিল। দেওয়ানগঞ্জের ১ জন পুরুষ ও মেলান্দহের ১ জন চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।

জেলায় এখন পর্যন্ত সদরে ৫০, মেলান্দহে ৪৬, ইসলামপুরে ২৬, মাদারগঞ্জে ১৩, সরিষাবাড়িতে ১৩, বকশীগঞ্জে ১২, দেওয়ানগঞ্জে ৯ জনসহ মোট ১৬৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এদের মধ্যে সুস্থ্য হয়েছে মোট ৮৫ জন।

 

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ