বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৭:৩২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
তাহিরপুরে অজ্ঞাত বৃদ্ধার ঠিকানা খুঁজছে এলাকাবাসী নিবন্ধন না থাকায় সাভারে বিভিন্ন হোটেল ও রেস্টুরেন্টকে ১ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা জরিমানা আশুলিয়ায় স্কুল পড়ুয়া কিশোরকে পিটিয়ে হত্যা, সাভারে ২ জনের লাশ উদ্ধার পাটগ্রামে ভারতীয় শাড়ী ও কসমেটিক্স সহ আটক ২ নৌকার মাঝি মোহাম্মদ আলী, ধানের শীষ হাতে সাইফুল আলম বরগুনায় গণপূর্ত বিভাগের জলাশয় অবৈধভাবে দখল করে মাছ চাষ বগুড়ায় ভাতিজার লাঠির আঘাতে চাচার মৃত্যু ঘোড়াঘাটে বালু বোঝাই ট্রাকে ফেন্সিডিলসহ গ্রেফতার ২ সাভারে টায়ার পুড়িয়ে পরিবেশ দূষণ, ৫টি কারখানা গুড়িয়ে দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত মন্ত্রণালয়ের কোন কর্মকর্তা কর্মচারী দুর্নীতি করলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা: অতিরিক্ত সচিব

তালতলীতে টাকার বিনিময়ে তিন জুয়ারীকে ছেড়ে দিলো পুলিশ!

মো.মিজানুর রহমান নাদিম, বরগুনা প্রতিনিধি

বরগুনার তালতলীতে জুয়া খেলার সময় পুলিশের হাতে আটক তিন জুয়ারীকে ৩০ হাজার টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শনিবার(০৪ এপ্রিল) রাত সাড়ে ১১টার দিকে জুয়ার আসর থেকে তিনজন জুয়ারীকে হাতে নাতে আটক করেন তালতলী থানা পুলিশের একটি টিম।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায় ,উপজেলার নিদ্রা এলাকায় একটি জুয়ার আসর বসার খবর তালতলী থানা পুলিশকে দেয় স্থানীয় ইউপি সদস্য শহিদ আকন। কিন্তু পুলিশ গরিমসি করে যেতে বিলম্ভ করেন। একপর্যায় এসআই গোলাম সারোয়ারসহ তিন চারজন পুলিশ ঘটনাস্থানে গিয়ে জুয়ারী জাফর আকন(৪০),শাহজাদা(৪৮),ছগির(৪২) কে হাতেনাতে আটক করেন। এসময় হাই আকন নামের একজন পালিয়ে যায়। পরে এসআই গোলাম সারোয়ার ৩০ হাজার টাকার বিনিময়ে তাদের তিনজনকে ছেড়ে দেয় পুলিশ।

স্থানীয় ইউপি সদস্য শহিদ আকন বলেন, আমি রাত ৮টার দিকে পুলিশকে জুয়ার ও ইয়াবা খাওয়ার আসর বসার কথা জানাই। পরে তালতলী থানা পুলিশের এসআই গোলাম সারোয়ার,এএসআই সাহাবউদ্দিন, এএসআই আবুল কালাম আজাদ,এএসআই সাইফুল ১০টার দিকে ঘটনাস্থানে এসে তাদের আটক করেন। কিন্তু পুলিশ ৩০হাজার টাকার বিনিময়ে তাদেরকে ছেড়ে দেয়।
এসআই গোলাম সারোয়ার বলেন,তিনজনকে ঘটনাস্থল থেকে আটক করা হয়। তবে জুয়ার ও ইয়াবার কোনো আলামত না পাওয়ায় তাদের তিনজনকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। টাকার জুয়ারীদের ছেড়ে দেওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন সোর্সদের স্বার্থ হাসিল করার জন্য মিথ্যা তথ্য দিয়েছেন। এখানে টাকার লেনদেনের কোনো ঘটনা ঘটেনি।

তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কামরুজ্জামান মিয়া বলেন,জুয়া খেলার আসর বসছে এমন তথ্য পেয়ে আমাদের পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থানে গিয়ে তিনজনকে পায়। কিন্তু তাদের কাছে জুয়া খেলার কোনো সরঞ্জাম পাওয়া যায়নি তাই তাদের হয়রানি না করে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। বিশেষ করে ওখানে দুইটি পক্ষবিপক্ষ আছে তাই ভুল তথ্যদেওয়া আমাদের। টাকা বিনিময়ের বিষয়টি অসত্য।

আমতলী-তালতলী সার্কেল সহকারী পুলিশ সুপার সৈয়দ রবিউল ইসলাম বলেন, টাকার বিনিময়ে জুয়ারীকে ছেড়ে দেওয়ার বিষয়ে আমি তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কামরুজ্জামান মিয়াকে তদন্ত করে দেখার জন্য বলেছি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ