শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০৭:২১ অপরাহ্ন

তাহিরপুরে রমরমা গাঁজার ব্যবসা, আসক্ত হচ্ছে তরুণ প্রজন্ম

টাইফুন মিয়া, তাহিরপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি

আজকের যে প্রজন্মকে নিয়ে সূদুর ভবিষ্যতে বিশ্বের মানচিত্রে নিজ দেশের মর্যাদা বৃদ্ধি করতে সরকার পর্বতশীর্ষ স্বপ্ন দেখছে, সেই প্রজন্ম শুরুতেই যখন গাঁজার মতো ভয়াবহতার কবলে আসক্ত হয়ে ক্রমে ক্রমে ধ্বংস হয়ে যায় তখন মাননীয় সরকারের এই স্বপ্নটা নিছক অনর্থক ও ভঙ্গুর স্বপ্ন হিসেবেই বিবেচিত হয়।

এমনই এক ভয়াবহতার তান্ডব চলছে সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর উপজেলার শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নের মন্দিয়াতা গ্রামে। জানা যায়, উপজেলার মন্দিয়াতা গ্রামে প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে দিনের পর দিনে গাঁজার মতো ভয়াবহ মাদকের রমরমা ব্যবসা করে যাচ্ছে কুখ্যাত ও সমাজ বিধ্বংসকারী বাহাদুর মিয়া (৪০), পিতাঃ মৃত আব্দুল খালেক নামে এক ব্যক্তি।

গাঁজার ধ্বংসলীলায় আসক্ত হচ্ছেন যুবক, বৃদ্ধ, বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষসহ আসক্ত হচ্ছে প্রাথমিক স্কুল পড়ুয়া নানা শিক্ষার্থী। এতে আসক্তির ফলে অস্বাভাবিক জীবনযাপনে অভ্যস্ত হওয়াসহ দাম্পত্য জীবনে কলহ বিরোধ ও পারিবারিক বিপর্যয় নেমে এসেছে অনেকের। গাঁজার মতো এমন অন্ধকার জগতে এদের কেউবা এসেছেন বন্ধুদের প্ররোচনায়, কেউবা এসেছেন নতুন অভিজ্ঞতা লাভের কৌতূহল উদ্দীপনা নিয়ে। অবশেষে কেউই বাদ পড়ছেন মাদকাসক্তির তালিকা থেকে। চোখের সামনে তিলে তিলে ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে কতো শত সতেজ প্রাণ, এ যেন মনুষ্য ধ্বংসের হোলি খেলা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক গাঁজা সেবনকারী এক প্রাথমিক স্কুল শিক্ষার্থী জানায়, মাত্র ৫০ টাকা হলেই সেবন করার মতো পর্যাপ্ত গাঁজা হাতের নাগালে চলে আসে। আর টাকা? টাকার জন্য চলে হাজারো ধান্ধা। বাবার কাছ থেকে চেয়ে আনি, না দিলে চলে বাবার পকেটে অভিযান। কখনওবা গাঁজা সেবনের টাকা জোগাড় করতে কাজের সন্ধানে বের হই। পাঠলাই নদীর তীরে চুনাপাথর কুড়িয়ে উপার্জন করি। তাও যদি না করতে পারি তাহলে প্রয়োজনে দোকানে কিংবা বাড়িতে চুরি করি তবুও গাঁজা খেতেই হবে, অভ্যাস বলে কথা।

ছোট্ট ছেলেটির এমন অভিব্যক্তি শুনে যেখানে থমকে যায় পৃথিবী, সেখানে সমাজ সংস্কারকরা ঐসব মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করে এদেরকে(মাদকাসক্তদের) অন্ধকার জগৎ থেকে ফিরিয়ে এনে আলোর দিশা দিতে নিচ্ছেন না কোনো যুগান্তকারী পদক্ষেপ।

এদিকে এলাকাবাসীর দাবি- একটা মাদকমুক্ত সমাজ, যে সমাজে ফুটফুটে শিশুগুলো বেড়ে উঠবে একটি সুন্দর ও স্বচ্ছ পরিবেশে। এহেন পরিবেশে বাতাসে থাকবে না কোনো গাঁজার বিষক্রিয়া, থাকবে কোনো মাদক ব্যবসায়ীর তান্ডব।

এ ব্যাপারে তাহিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ জনাব আতিকুর রহমানকে অবহিত করলে তিনি এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিবেন বলে জানান।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ