বুধবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২১, ০২:০৯ অপরাহ্ন

দিন দিন যেন ঔষধ কোম্পানি গুলোর দৌরত্ব বেড়েই চলেছে

মো: ফারুক মিয়া , সিলেট

ডাক্তারের চেম্বার থেকে বের হতে না হতেই আপনার সামনে দাঁড়িয়ে অতি বিনয়ের সাথে আপনার ব্যবস্থাপত্র দেখতে চাইবে। জুতা জামা পড়ে ভদ্র মানুষ গুলো ব্যাবস্থাপত্রের ছবি তুলে রাখেন। আমরাও নীরবে না বুঝেই তাদের সহায়তা করে যাই। কিন্তু কেন এই ছবিতোলা তার প্রকৃত কারণ কি? প্রকৃত পক্ষে তাদের কোম্পানির কয়টি ওষুধ ডাক্তার সাহেব লিখেছেন এটা তার প্রমাণ । পরবর্তিতে হয়তবা ডাক্তারকে এর জন্য জবাবদিহি করতে হতে পারে। এক্ষেত্রে রোগীদের প্রকৃত চিকিৎসা গৌণ ওষুধ লেখাই মূখ্য।

কখনো কখনো চিকিৎসক তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে অতিরিক্ত ওষুধ লিখতে বাধ্য হয়। ফলে আমরা প্রকৃত চিকিৎসা বঞ্চিত হচ্ছি প্রতিনিয়ত। বাধ্য হচ্ছি অপ্রয়োজনীয় অবাঞ্চিত অথবা নিম্নমানের ঔষধ কিনে খেতে। নতুন ডিজিটাল এই জনস্বার্থ বিরোধী কর্মকান্ড থেকে আমাদের সকলের সচেতন হওয়া প্রয়োজন। ঔষধ কোম্পানীর এসব দালালদের কোন সময় আপনার প্রেসক্রিপশন এর ছবি তুলতে চাইলে ছবি তুলতে দিবেন না।

এসব ঔষধ কোম্পানি গুলোর এসব দালালদের জন্য এবং তাদের ভিজিটিং ঔষধ এর জন্য মানুষ আজ ভাল ভাল ঔষধ এর প্রেসক্রিপশন পাচ্ছে না। যার ফলে আজ একজন অসুস্থ রোগির ঘাড়ে বাধ্য হয়ে চাপিয়ে দেয়া হয় একবোঝা ঔষধের প্রেসক্রিপশন। সমাজের সচেতন ব্যক্তিরা মতামত দেন যে এসব দালালদের হসপিটালের সামনে থেকে বয়কট করা।

আর ভাল ভাল ঔষধ কোম্পানি ছাড়া অন্য কোন প্রেসক্রিপশন যেন নাহ লেখে এই জন্য ডাক্তার দের সহযোগিতা কামনা করেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ