শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ১২:৩১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
রপ্তানি আয়ের অন্যতম উৎস হবে আম: কৃষিমন্ত্রী খাবার না থাকলে আমাকে জানান, আমি বাড়ি বাড়ি খাবার পৌছে দিব: এমপি আনার অমুক্তিযোদ্ধাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফনের অভিযোগ স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের কমলগঞ্জে হিন্দু ছাত্র পরিষদের দ্বিবার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত ময়মন‌সিং‌হের শম্ভুগ‌ঞ্জে প্রায় শতা‌ধিক দোকানে ধর্মঘট শেরপুরের শ্রীবরদীতে ১’শ পিস ইয়াবাসহ যুবক গ্রেফতার সাংসদ কন্যা ডরিন এর নেতৃত্বে রোজা রেখেও দৃষ্টি প্রতিবন্ধী এক কৃষকের ধান কেটে দিয়েছে ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ করোনা সঙ্কটে আবারো অসহায় মানুষের পাশে সাংসদ কন্যা ডরিন সাভারে দুই নারী ধর্ষণের শিকার, আটক ২ ভারত বাংলাদেশ সীমান্তে তিস্তায় ডুবে একজনের মৃত্যু

নাগরপুরে নৌকা বাইচ দেখতে গিয়ে শিশু নিহত, আহত ৫

মোঃকবির হোসেন, নাগরপুর (টাংগাইল) উপজেলা প্রতিনিধি

টাঙ্গাইলের নাগরপুরে পাইশানা তুর্কি বিলে নৌকা বাইচ দেখতে গিয়ে প্রায় শতাধিক দর্শনার্থী নিয়ে একটি নৌকা ডুবির ঘটনায় ফাহিমা (১০) নামের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে।

গতকাল বুধবার (১৯ আগষ্ট) বিকেল আনুমানিক ৬টায় পাইশানা তুর্কি বিলে এ মর্মান্তিক দূর্ঘটনা ঘটেছে। নিহত ফাহিমা উপজেলার বারাপুষা গ্রামের ফারুক হোসেনের মেয়ে।

এ সময় নৌকার অন্যান্য যাত্রীরা নিরাপদে ডাঙ্গায় উঠে প্রাণে বেঁচে গেলেও আহত হয়েছে ৫ জন। আহতদের নাগরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে নিজ নিজ বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বুধবার বিকেলে পাইশানা বিলে এক নৌকা বাইচের আয়োজন করা হয়। বিকেল ৩টায় শুরু হওয়া নৌকা বাইচ দেখতে নাগরপুর উপজেলা সহ আশপাশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে হাজার হাজার উৎসুক জনতা নৌকা বাইচ দেখতে ভীড় জমায়। নৌকা বাইচ চলাকালীন ওই নৌকার ছাউনি (ছাদ) ভেঙ্গে যাত্রীসহ নৌকা ডুবে যায়। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে নিরাপদ স্থানে নিয়ে আসে। ঘটনাস্থলে ফাহিমা আক্তার মারা যায় ও আহত ৫ জনকে চিকিৎসার জন্য নাগরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়।

সংবাদ পেয়ে নাগরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) সৈয়দ ফয়েজুল ইসলাম তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থল পৌঁছান। পরে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আরো কেউ ডুবন্ত নৌকায় আটকে থাকতে পারে এমন সন্দেহ থেকে ডুবুরি নামিয়ে উদ্ধার তৎপরতা চালায়।

এসময় নাগরপুর থানা পুলিশও উদ্ধার কাজে যোগ দেয়। তবে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল আটকে পরা কাউকে না পেয়ে উদ্ধার কাজ সমাপ্তি ঘোষণা করে। এ ঘটনায় রাত ১১ টা পর্যন্ত উদ্ধার কার্যক্রম অব্যহৃত ছিলো।

এ প্রসঙ্গে টাঙ্গাইল ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক মোঃ জলিল মিয়া বলেন, আমরা সংবাদ পেয়ে টাঙ্গাইল থেকে ডুবুরি দল নিয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে আসি। আমাদের চৌকস ডুবুরি দল পানির নিচে গিয়ে তল্লাশি চালায় কিন্তু কোন নিহতের উপস্থিতি চোখে না পরায় দীর্ঘ তিন ঘন্টা পর আজকের মত উদ্ধার কাজ সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়েছে। তবে প্রয়োজনে আগামীকালও উদ্ধার কাজ চালানো যেতে পারে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দ ফয়েজুল ইসলাম বলেন, দূর্ঘটনায় পতিত নৌকাটি অতিরিক্ত যাত্রী বহন করায় এ দূর্ঘটনা টি ঘটেছে। এ ঘটনায় একজন শিশুর মৃত্যু হয়েছে ও ৫ জন আহত হয়েছেন। নিহত কেউ নৌকায় ভেতর থাকতে পারে এমন সন্দেহ থেকে আমরা ডুবুরি নামিয়ে সন্ধান করার চেষ্টা করেছি।

এই নৌকা বাইচে প্রশাসনের লিখিত বা মৌখিক কোন অনুমতি আছে কি না – সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দ ফয়েজুল ইসলাম বলেন -না, তারা প্রশাসনের কোন অনুমতি না নিয়েই এ নৌকা বাইচের আয়োজন করেছে। প্রশাসন এ ব্যাপারে আয়োজকদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ

Spoken English কোর্স