শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ০৯:১৯ পূর্বাহ্ন

নালিতাবাড়ীতে ঝড়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

রবিউল ইসলাম শেরপুর, নালিতাবাড়ী প্রতিনিধি

শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার পাহাড়ি এলাকায় গত রবিবার রাত থেকে গত সোমবার রাত পর্যন্ত কাল বৈশাখী ঝড়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।নন্নী,পোড়াগাও,নয়াবিল সহ পার্শ্ববর্তী ঝিনাইগাতি থানার নলকুরা ইউনিয়নের কিছু গ্রামেও ঝড়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়।

পোড়াগাও ইউনিয়নের পাহাড়ি এলাকার ধোপাকুরা গ্রামের অসহায় গরিব দারিদ্র্য ভেন চালক জালাল উদ্দীনের ১৬ হাত ঘরের উপরে গাছ পরে ঘর ভেংগে যায়।এছাড়াও ধোপাকুরা গুলেনা বেগমের ২০হাত ঘর ঝড়ে পড়া গাছের আঘাতে ভেংগে যায়।ধোপাকুরা বাজারের স্বনামধন্য এক্টি আমলকি গাছ উপরে পরে।পোড়াগাও গ্রামের কয়েকটি ঘরবাড়ি সহ বিপুলসংখ্যক গাছপালা উপড়ে পরে।মধুটিলার আকবরের কোন রকম থাকার ঘর সহ,সমশ্চুরার জামালের ১২হাত,ইউসুফের ঘর,হযরতের ঘর,জাংগালি পারার মান্নানের ঘর সহ আরও অনেকের এই কালবৈশাখী ঝড়ে ভেংগে যায়।

এছাড়াও নন্নি ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রামের কয়েক জনের ঘরবাড়ি সহ অসংখ্য গাছপালা উপড়ে পরে এবংকি কয়েক জনের বসত করা ঘরের উপরেও পরে।এতে ঘরবারি ভেংগে গেলেও কোন মানুষের ক্ষতি হয় নাই বলে নিশ্চিত করেন নন্নী ইউনিয়নের আউলিয়া।নয়াবিল ইউনিয়নের কিছু গ্রামেও ঘর বাড়ি সহ অনেক গাছপালা উপড়ে পরে বলে জানা যায়।পার্শ্ববর্তী ঝিনাইগাতি থানার নলকুরা ইউনিয়নের কিছু গ্রামেও এই ঝড়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয় বলে জানান ঝিনাইগাতির সংবাদকর্মী দুদু মল্লিক।

আর এই বিষয়ে ধোপাকুরার সাবেক ইউ সদস্য মুনছুর মেম্বার ঝড়ে ক্ষয়ক্ষতি হওয়া গরীব অসহায় দারিদ্র্য পরিবারের মাঝে সরকারি সাহায্যের জন্য কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করেন।

বর্তমান ধোপাকুরা ও সমশ্চুরা ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য রহুল মেম্বার,নবী মেম্বার বলেন,এই সময়ে ঝড়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে অনেকের।ঘরবাড়ি সহ অনেক গাছপালা উপড়ে পরে।আমরা ক্ষয়ক্ষতি হওয়া এসব ঘরবাড়ি দেখে এসেছি ও চেয়ারম্যান এর মাধ্যমে উপরের মহলকে জানাতে বলছি যদি কোন সাহায্য সহযোগিতা করেন বড় স্যারেরা।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ

Spoken English কোর্স