শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০৫:২০ অপরাহ্ন

নাসিরনগরে ২ টি গ্রাম ‘লকডাউন’

শিমুল নন্দী, ব্রাক্ষণবাড়িয়া

ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলা নাসিরনগর উপজেলার কুন্ডা ইউনিয়নে একটি গ্রাম ও ভলাকুট ইউনিয়নের একটি গ্রাম তারুণ্যের বাংলাদেশ ‘ব্রাহ্মণবাড়ীয়া শাখার’ উদ্যোগে লকডাউন করে রাখা হয়েছে তিনটি ওয়ার্ড।

এই ব্যাপারে জানতে চাইলে তারুণ্যের বাংলাদেশ ব্রাক্ষণবাড়িয়া শাখার সভাপতি চৌধুরী খাইরুল আমিন মোল্লা অপধাদ.কম জানান নাসিরনগর প্রসাশনের তরফ থেকে কাহেতুরা ৮,৯,নং ওয়ার্ডের ও সাধন লকডাউন করা হয়। এতে আমাদের গ্রামে চাপা আতংক তৈরি হয়েছে। নিজেদের সুরক্ষিত রাখতে স্থানীয় যুবসমাজের উদ্যোগে আমরা আমাদের গ্রাম লকডাউন করেছি। স্থানীয়দের সচেতন করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

‌সরেজমিনে দেখা যায়, কাহেতুরা গ্রামের প্রবেশমুখে বাঁশ দিয়ে ব্যারিকেড তৈরি করা হয়েছে। ব্যারিকেডের বাঁশের ওপর লেখা ‌’লকডাউন চলছে, জরুরি প্রয়োজনে, ০১৭৬৬২১৬৪২৯,০১৮৯০০৩০০৬০,০১৯৯৯৫৮৬৮৮৩।’ আরো একটি কাগজে লেখা নিজে বাঁচুন, অন্যকে বেঁচে থাকার সুযোগ দিন।

সচেতনতামূলক এ কার্যক্রম বাস্তবায়নের লক্ষ্যে তারুণ্যের বাংলাদেশ এর সেচ্ছাসেবীরা পালাক্রমে পাহারা দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

গ্রামের নিরাপত্তার স্বার্থে সেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ করবেন তারুণ্যের বাংলাদেশ ব্রাক্ষণবাড়ীয়া শাখার সাধারণ সম্পাদক শিমুল নন্দী,অর্থ সম্পাদক মোনাইম চৌধুরী,প্রচার সম্পাদক উজ্জ্বল চৌধুরী, সদস্য শাহআলম,মিজবা, হান্নান, ফখরুদ্দীন, আলী আহমেদ, ইয়াহিয়া চৌধুরী,শরীফ,প্রমুখ.

সেচ্ছাসবীরা জানান এলাকার বাইরের কেউ প্রবেশ করতে চাইলে তাদের বুঝিয়ে ফেরত পাঠানো হচ্ছে। আর প্রয়োজন ছাড়া এলাকার কাউকে বের হতে দেয়া হচ্ছেনা। জরুরি প্রয়োজনে গাড়িগুলোতে প্রবেশমুখে জীবাণুনাশক ছিটানো হচ্ছে।

স্থানীয়রা এ উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়ে বলছেন, নিজেদের সুরক্ষায় কয়েকদিন যদি বের না হয়ে থাকতে হয়, তাহলে সেটি মেনে চলতে কোনও ক্ষতি নেই। আমাদের এলাকার যুব সমাজ যে উদ্যোগ নিয়েছে সেটি প্রতিবেশী ও স্থানীয়দের জন্য ইতিবাচক।

নাসিরনগর থানা ওসি মহোদয় সেচ্ছাসেবকদের এমন উদ্যোগকে স্বাগত জানায় ।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ