রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:৩৩ অপরাহ্ন

পিতার ছুরিকাঘাতে মেয়ে ও স্ত্রীর অবস্থা আশংকাজনক!
মোঃমশিউর রহমান বিপুল, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি / ১৫০ ভিউ
সর্বশেষ আপডেট : রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১

কুড়িগ্রাম জেলার রাজারহাট উপজেলার উমরমজিদ ইউনিয়নের ছোট মহিষমুড়ি গ্রামে পিতার ছুড়িকাঘাতে মেয়ে ও স্ত্রী গুরুতর আহত হয়ে কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে। তাদের অবস্থা এখন আশংকাজনক।

আজ শনিবার (০৪ জুলাই) নির্মম পিতা জুবায়ের আলী (৪৩), পিতা: আজগার আলী, গ্রাম: গোপালগঞ্জ, ডাক: কাকিনা, উপজেলা: কালীগঞ্জ, জেলা: লালমনিরহাট। লালমনিরহাট থেকে দুপুরে তার শ্বসুর বাড়িতে এসে তার স্ত্রীকে খোঁজা খুঁজি করলে না পেয়ে পার্শ্ববর্তী খাঁ পাড়া স্কুলের পাশে গিয়ে তার স্ত্রীর দেখা পেয়ে এলোপাতারি কোপাতে থাকে।

পূর্ব পারিবারিক কলহের জের থাকতে পারে বলে এলাকাবাসী জানায়। উল্লেখ্য যে, এ সময় জুবায়েরের স্ত্রী শাহিনুর বেগম (৩২) ও তার কন্যা সন্তান খাঁ পাড়া স্কুলের পাশে অন্যের মরিচ খেতে মরিচ তুলতেছিলো। কিছু বুঝে ওঠার আগেই পকেটে থাকা ধারাল ছুড়ি বের করে পাজরে, কোমরে, পিঠে এলোপাতারি কোপ ও খোঁচাতে থাকলে তার ছোট মেয়ে মোছা: যমুনা (১৯) তার মাকে বাঁচাতে এলে তাকেও জখম করে। শাহিনুর বেগম উমর মজিদ ইউনিয়নের ছোট মহিষমুড়ি গ্রামের দিন মজুর নুর আমিনের কন্যা।

পার্শ্ববর্তী এলাকার লোকজন দেখে দৌড়ে এসে শাহিনুর বেগমকে রক্তাত্ব অবস্থায় উদ্ধার করে এবং জুবায়েরকে আটক করে রাজারহাট থানা পুলিশকে খবর দিলে রাজারহাট থানা পুলিশ তাকে এবং উক্ত ছুড়িটি জব্দ করে থানা হেফাজতে নিয়ে যায়।

শাহিনুর বেগমের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাকে কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে পাঠানো হয় এবং মেয়ে যমুনার বাম হাতের রগ কেটে গেছে বলে রোগীর আত্মীয় জানায়। তারা উভয়েই সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছে।

এ ব্যাপারে রাজারহাট থানার অফিসার ইনচার্জ রাজু সরকারের সাথে কথা বললে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আমরা আসামীকে আটক করেছি। মামলার প্রস্তুতি চলমান।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Shares