শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০২:৩৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
প্রকাশ্য দিবালোকে সাভার ও আশুলিয়ার ২ যুবক খুন যৌতুকের বলি আনজিলা আক্তার! জামালপুরে ভ্যান চালক শিশু সম্পার পরিবারের দায়িত্ব নিলেন প্রধানমন্ত্রী ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানেও বন্ধ হচ্ছে না অবৈধ জাল পাঁচ হরিণ শিকারী আটক করেছে বন বিভাগ জলবদ্ধতা নিরসনে দুই চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে অবৈধ নেটপাটা অপসারণ অপরাধ ডটকমের সাভার প্রতিনিধির মায়ের ইন্তেকাল বগুড়া পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদপ্রার্থী জনপ্রিয়তার শীর্ষে আমিনুল ফরিদ চাঁপাইনবাবগঞ্জে রেজিস্ট্রি অফিসের অনিয়মের বিরুদ্ধে সনাসের মানববন্ধন মৌলবাদ ও সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে সাভারে যুবলীগের বিক্ষোভ মিছিল

পিরোজপুরে ডাক্তার-নার্সদের এন-৯৫ মাস্ক প্রদান

মোঃ রায়হান, পিরোজপুর

পিরোজপুর জেলা পরিষদের উদ্যোগে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে পিরোজপুর জেলা হাসপাতালসহ জেলার ৭টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডাক্তার ও নার্সদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার লক্ষ্যে এন-৯৫ মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে।

জেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে আজ সংক্ষিপ্ত এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে পিরোজপুর সিভিল সার্জন ডা. মো. হাসনাত ইউসুফ জাকি’র হাতে ৬শত এন-৯৫ মাস্ক তুলে দেন জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রেবেকা খান। এ সময় জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম সুমন, জেলা পরিষদের সদস্য নাসির উদ্দিন হাওলাদার উপস্থিত ছিলেন।

মাস্ক বিতরণ অনুষ্ঠানে সিভিল সার্জন ডা. হাসনাত ইউসুফ জাকি বলেন, বর্তমান অবস্থায় এন-৯৫ মাস্ক পাওয়া দুঃষ্কর ও ব্যয়বহুল। পিরোজপুরে এন-৯৫ মাস্কের অভাবে ডাক্তার ও নার্সরা করোনা ঝুঁকির মধ্যে ছিল। জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের উদ্যোগে এন-৯৫ মাস্ক পেয়ে এখন ডাক্তাররা নিরাপদে চিকিৎসা সেবা দিতে পারবে।

জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রেবেকা খান জানান, পিরোজপুরে করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে নমুনা সংগ্রহ ও রোগীদের চিকিৎসার জন্য ডাক্তাররা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। তাদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার কথা বিবেচনা করে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. মহিউদ্দিন মহারাজের নির্দেশনায় জেলা পরিষদের অর্থায়নে ৬০০ এন-৯৫ মাস্ক প্রদান করা হল।

তিনি আরও জানান, জেলা পরিষদের উদ্যোগে এর আগে ডাক্তার ও নার্সদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা উপকরণ প্রদান করা হয়েছে। এছাড়াও করোনা পরিস্থিতির শুরু থেকে জেলা পরিষদের বিভিন্ন সচেতনতামূলক কার্যক্রম, যেমন – জনসাধারণসহ বিভিন্ন পেশাজীবীর মাঝে মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, হ্যান্ডওয়াশ, সাবান বিতরণ অব্যাহত ছিল। তাছাড়া কর্মহীন হয়ে পরা জেলার ৩ হাজার অসহায় মানুষকে খাদ্য সহায়তা দেয়া হয়। বর্তমানে আরও ৬ হাজার ২০০ পরিবারকে ইফতার সামগ্রী ও খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ