সোমবার, ২১ জুন ২০২১, ০১:৫২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
গাজীপুর মহানগরের ১৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী আব্দুস সোবাহান সকলের দোয়া চায় ব্যাংকে ঋণ থাকা অবস্থায় ব্যবসায়ীর মৃত্যু: ৯ বছর পর চাপে ভুক্তভোগী পরিবার মাগুরায় ৮ দিন পর যুবকের মস্তকবিহীন লাশের মাথা ও পা উদ্ধার গাজীপুরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্কুল কলেজ খোলার জন্য মানববন্ধন। মাগুরায় পরিত্যক্ত পুকুরে মিললো যুবকের টুকরো টুকরো লাশ বশেমুরবিপ্রবিতে শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ, স্বেচ্ছায় অব্যহতি গাজীপুরে ভোগরা বাইপাসে স্ট্রোকে আম বিক্রেতার মৃত্যু গাজীপুরে সড়ক দূর্ঘটনায় গার্মেন্টস শ্রমিকের মৃত্যু শেরপুরে নকল সোনার বারসহ ২ প্রতারক গ্রেফতার কাল থেকে ৭ দিনের জন্য কঠোর লকডাউন চাঁপাইনবাবগঞ্জে

প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতাকে দেখতে গেলেন ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক রিদওয়ানুল হক সুজন

ডেক্স রিপোর্ট

প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতাকে দেখতে গেলেন লোহাগাড়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক রিদওয়ানুল হক সুজন।

৮ (জুলাই) রোজ বুধবার প্রবীণ নেতা আমিরাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের আহ্বায়ক এ কে এম ফজলুল হক চৌধুরী দেখতে তার বাসায় ছুটে যান লোহাগাড়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক রিদওয়ানুল হক সুজন।

পরে রিদওয়ানুল হক সুজন জানান এ কে এম ফজলুল হক চৌধুরী, আমিরাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আহবায়ক। গত কয়েক মাস ধরে বার্ধক্য জনিত কারণে গুরুতর অসুস্থ। ৮৪ বছরের বয়সের ভারে নুজু এই বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ কে দেখতে গতকাল ওনার বাড়িতে গিয়েছিলাম।

আমাদের দেখে এমন সময়েও মনে হলো যেন কুলে উঠা মাছ পানি ফিরে পেয়েছে। কথা বলার শক্তি তেমন না থাকলেও স্মৃতি শক্তি এখনো প্রখর। স্মৃতি চারণ করতে করতে অশ্রু গড়িয়ে পড়ছিল ওনার। খুব আক্ষেপ দলের মিটিং মিছিলে যেতে পারছেন না বলে। ওনার পদবী আছে কিনা জানতে চাইলে যখন হ্যাঁ শুনার পর মনে মনে খুশির আভা চোখ মুখে ফুটে উঠেছিল।

অনেকদিন ধরে অসুস্থ প্রবীণ এই বঙ্গবন্ধু প্রেমী মানুষটির মনে বড় কষ্ট নেতারা ওনার খবর নেন না।
তাকে একটু দেখতে যান না। কথা বলতে বলতে আবেগাপ্লুত ফজলুল হক চাচা জীবনের একটি শেষ ইচ্ছার কথা বলছিলেন যেন ওনার ছেলে খোরশেদ আলম কে রাজনীতিতে একটা জায়গা করে দেয়া হয়!! যাতে তার নামটা যেন মানুষ ভূলে না যায়।
ওনাকে হয়তো আশ্বাস্ত করেছি তাৎক্ষণিক শান্তনা দেয়ার জন্য কিন্তু আমার মত ক্ষুদ্র কর্মী যে এখনো আওয়ামী লীগের প্রথমিক সদস্য হতে পারিনি তার পক্ষে কি সম্ভব??

মনে হয়নি আর বেশী দিন থাকবেন, বারবার আর দেখা হবে কিনা বলে বলে হা হুতাশ করছিলেন।
ওনি যখন আমার হাত ধরে কথা বলছিলেন বারবার আমার আব্বুর হাতের ছবি ভাসছিল দুচোখে।
রাব্বুল আলামিন আপনার সুস্থতা দান করুন, নেক হায়াত দান করুন,, আমিন,,,


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ

Spoken English কোর্স