শুক্রবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ১০:০৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
সাংবাদিক মুজাক্কির হত্যার বিচার চেয়ে বগুড়ায় মানববন্ধন সাংবাদিক মুজাক্কির হত্যার প্রতিবাদে হাতীবান্ধায় মানববন্ধন সাংবাদিক মুজাক্কির হত্যার বিচার দাবিতে মানববন্ধন জাবির আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা হল ছেড়েছেন, সব ধরনের পরীক্ষা স্থগিত অবৈধ বালুর ব্যবসায় দূর্বিষহ টোরামুন্সিরহাটের জনজীবন সাংবাদিক মুজাক্কির হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি জানিয়েছে বিএমএসএফ বগুড়ায় বিদেশি পিস্তল গুলি সহ অাটক ১ সাংবাদিক হিসেবে আপনিও যোগ দিন অপরাধ ডটকমে সাংবাদিক হত্যার বিচার দাবিতে কাল ঢাকাসহ দেশব্যাপী প্রতিবাদ সমাবেশ লালমনিরহাটে সড়ক দুর্ঘটনায় মোটরসাইকেল ব্যাংক কর্মকর্তা নিহত

বগুড়ায় দুই নার্সসহ করোনায় আক্রান্ত ১১

নাজমুল হাসান, বগুড়া প্রতিনিধি

বগুড়ায় নতুন করে আরও দুই নার্সসহ মোট ১১জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। বগুড়ার ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মোস্তাফিজুর রহমান তুহিন মঙ্গলবার (২৬ মে) রাত ৯টায় জানান তথ্য।

তাদের মধ্যে ৬জনই বগুড়া সদরের বাসিন্দা। বাকি ৫ জনে বাড়ি জেলার কাহালু, ধুনট, শাজাহানপুর, শিবগঞ্জ ও সোনাতলা উপজেলায়। আক্রান্তদের বয়স ১৯ থেকে ৫১ বছর। তাদের নমুনা ২৩ ও ২৪ মে সংগ্রহ করা হয়েছে। তিনি বলেন, আক্রান্ত ১১জনের মধ্যে একজন ছাড়া সবাই ঢাকাফেরত।

ওই ১১জনকে নিয়ে জেলায় মোট ১৯০জন করোনায় আক্রান্ত হলেন। তাদের মধ্যে ১৬জন সুস্থ হলেও একজনের মৃত্যু হয়েছে। এখন জেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ১৭৩জন। আগের দিন সোমবার জেলায় আটজনের করোনায় শনাক্তের কথা জানিয়েছিল বগুড়া জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর।

মঙ্গলবার বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে বগুড়ার ৯০টিসহ মোট ৯৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। বাকি ৪টি পাশের জেলা জয়পুরহাটের নমুনা ছিল।বগুড়ার ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মোস্তাফিজুর রহমান তুহিন জানান, আক্রন্ত ১১জনের মধ্যে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ২ নার্স রয়েছেন।

তাদের একজনের বাড়ি বগুড়া শহরের নিশিন্দারা এলাকায় এবং আরেকজন শাজাহানপুর উপজেলাধীন শহরের শাকপালা এলাকায় বসবাস করেন। এছাড়া বগুড়া সদর উপজেলার অন্য ৫ জনের মধ্যে শহরের ঠনঠনিয়া, রহমাননগর, নাটাইপাড়া, মালগ্রাম দক্ষিণপাড়া ও পালশার একজন রয়েছেন। বাকি ৩জনের মধ্যে জেলার সোনাতলা উপজেলার চরপাড়া, শিবগঞ্জের মোকামতলা, ধুনটের চিকাশি ও কাহালু উপজেলার পীর বকুলতলার একজন রয়েছেন।

ডা. মোস্তাফিজুর রহমান তুহিন বলেন, শহরের রহমাননগরের আক্রান্ত ব্যক্তি স্থানীয়ভাবে সংক্রমিত হয়েছেন। তিনি বলেন, ‘আক্রান্তদের প্রত্যেককে আপাতত তাদের নিজ নিজ বাড়িতে রেখেই চিকিৎসা দেওয়া হবে। অবশ্য যদি প্রয়োজন পড়ে তাহলে তাদেরকে করোনা রোগীদের চিকিৎসার জন্য নির্ধারিত মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে নেওয়া হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ

Spoken English কোর্স