শুক্রবার, ০৭ মে ২০২১, ০২:০৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
রপ্তানি আয়ের অন্যতম উৎস হবে আম: কৃষিমন্ত্রী খাবার না থাকলে আমাকে জানান, আমি বাড়ি বাড়ি খাবার পৌছে দিব: এমপি আনার অমুক্তিযোদ্ধাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফনের অভিযোগ স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের কমলগঞ্জে হিন্দু ছাত্র পরিষদের দ্বিবার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত ময়মন‌সিং‌হের শম্ভুগ‌ঞ্জে প্রায় শতা‌ধিক দোকানে ধর্মঘট শেরপুরের শ্রীবরদীতে ১’শ পিস ইয়াবাসহ যুবক গ্রেফতার সাংসদ কন্যা ডরিন এর নেতৃত্বে রোজা রেখেও দৃষ্টি প্রতিবন্ধী এক কৃষকের ধান কেটে দিয়েছে ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ করোনা সঙ্কটে আবারো অসহায় মানুষের পাশে সাংসদ কন্যা ডরিন সাভারে দুই নারী ধর্ষণের শিকার, আটক ২ ভারত বাংলাদেশ সীমান্তে তিস্তায় ডুবে একজনের মৃত্যু

বৃত্তের বাহিরে

জয়নাল আবেদীন মাযহারী, এডভোকেট

আমি একজন স্বাচ্ছা আইনাঙ্গনের লোক বিধায় এটা আমার আলোচ্য বিষয় হওয়ার কথা নয়। তথাপিও নিম্ন মধ্যবিত্তদের কথা চিন্তা করে বৃত্তের বাহিরে এসে দুই কলম লিখার তীব্রতা অনুভব করছি। ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরের ঠিক শেষ ভাগে এসে আমরা উপনিত হয়েছি।

বৈশ্বিক করোনা মহামারীর ছোবলে বিশ্ব অর্থনীতি যখন স্থবীর হয়ে আছে ঠিক তখনই দেশের অর্থ মন্ত্রনালয় পরবর্তী অর্থ বছরের জন্য বাজেট ঘোষনা করতে হচ্ছে। আগামী ১১ই জুন ২০২০-২০২১ অর্থ বছরের বাজেট ঘোষনা করতে পারে।

করোনার ভয়ঙ্কর ছোবল টেলিকম খাতের উপর তেমন প্রভাব বিস্তার করতে পারেনি বিধায় এই খাতে নতুন বাজেটে শুল্ক কর কিছুটা বৃদ্ধি পাওয়ার সম্ভাবনা আছে। দেশের অর্থনীতির চাকা সচল রাখার ক্ষেত্রে টেলিকম খাত অন্যতম ভূমিকা রাখছে বিধায় এই খাতের শুল্ক বৃদ্ধির ব্যাপারে কর্তৃপক্ষ সচেষ্ট থাকবেন। বর্তমানে মোবাইলে আমাদের কথা বলার খরচে ১০% সম্পূরক শুল্ক আছে। নতুন বাজেটে এই শুল্কের হার ১৫% পর্যন্ত বৃদ্ধি পাওয়ার সম্বাবনা রয়েছে।

এমতাবস্থায় মোবাইল ফোনে কথা বলা ও ক্ষুদে বার্তা প্রেরনের উপর আমাদের অতিরিক্ত খরচ হতে পারে ১৫% ভ্যাট, ১% সারচার্জ, ১৫% সম্পূরক শুল্ক ইত্যাদি মিলে মোট করভার ৩২% দশমিক ৭৭ শতাংশ। এর মানে হলো, আপনি যদি ১০০ টাকা রিচার্জ করেন, তাহলে ২৭ টাকার মতো যায় সরকারের কোষাগারে। এই খরচ উচ্চ বিত্তদের দৈনন্দিন হিসেবে কোন প্রভাব না ফেললেও আমাদের মধ্যে ও নিম্ন বিত্তদের চরম কষ্টের কারন হবে বৈ কি? বৈশ্বিক তথ্য প্রযুক্তির অবাধ বিচরনের এই যুগে আমাদের নিম্ম, মধ্য, উচ্চ বিত্তসহ, ভি আই পি, সি আইপি সকল শ্রেনীর নাগরিকের হাতেই আজ একটি স্মার্ট ফোন শোভা পায়। স্মার্ট ফোনের অন্যতম বৈশিষ্ট হলো এতে ভার্চুয়ালি আজ বিশ্ব হাতের মুঠোয় চলে এসেছে।

সম্প্রতি বিশ্বের অনেক দেশে ভার্চুয়াল আদালত সিস্টেম চালু হয়েছে করোনার ধাক্কায়। আমরা আশা করি আদালতের শুনানীতে ভার্চুয়াল সিস্টেম আরও আপগ্রেড হয়ে করোনা পরবর্তী সময়েও চালু থাকবে। এইবার আসি মূল প্রসঙ্গে। প্রযুক্তির উৎকর্ষতায় স্মার্ট ফোনের ফিচারে দেশ বিদেশে ভার্চুয়ালি কথা বলার জন্য বিশ্বব্যাপি অনেক এপস, সফটওয়ার চালু রয়েছে। রয়েছে অডিও কল, ভিডিও কল এমনকি গ্রুপ কল করাসহ মিটিং সেমিনার করার সুবিধাও।

এ সবই প্রযুক্তির আশির্বাদ। যদিও উক্ত সব প্রযুক্তি ব্যবহার ইতোমধ্যেই হচ্ছে। কিন্তু সেটা সীমিত পরিসরে হচ্ছে। আমরা চাইলে সেটাকে মোবাইল ফোনের কলের আসনে বসাতে পারি। কেননা বর্তমানে আন্তর্জাতিক কলের ক্ষেত্রে এ সকল মাধ্যমকেই মোবাইল ফোনের একমাত্র বিকল্প ধরা হয়।

আমরা চাইলেই মোবাইল ফোনের কল রেট সেভ করার জন্য অত্যন্ত স্বল্প খরচে উক্ত সব প্রযুক্তি ব্যবহার করে বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে বিশ্বকে হাতের মুঠোয় রেখে অত্যাধুনিক হয়ে চলতে পারি। সে ক্ষেত্রে আপনি প্রশ্ন করতে পারেন এসব প্রযুক্তি ব্যবহার করতে ডাটা খরচ হয়ে থাকে।

এ ক্ষেত্রে উত্তর হলো মোবাইল ফোনের কল রেটের তুলনায় ডাটা কেনার টাকার খরচ এক বারেই নগন্ন। মোবাইলের কল রেট থেকে যেমন শুল্ক পান ডাটা কেনার টাকা থেকেও সরকার তেমনি শুল্ক পেয়ে থাকবেন।

মাঝখান দিয়ে স্বপ্ল আয়ের মানুষ স্বাচ্ছন্দে তাদের দৈনন্দিন কথোপকথন স্বল্প খরচে সমাধান করতে পারবেন।

 

লেখকঃ জয়নাল আবেদীন মাযহারী,
আইনজ্ঞ জজ কোর্ট কুমিল্লা।
ই-মেইল: joinalmajhari@gmail.com


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ

Spoken English কোর্স