শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ০১:০১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
রপ্তানি আয়ের অন্যতম উৎস হবে আম: কৃষিমন্ত্রী খাবার না থাকলে আমাকে জানান, আমি বাড়ি বাড়ি খাবার পৌছে দিব: এমপি আনার অমুক্তিযোদ্ধাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফনের অভিযোগ স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের কমলগঞ্জে হিন্দু ছাত্র পরিষদের দ্বিবার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত ময়মন‌সিং‌হের শম্ভুগ‌ঞ্জে প্রায় শতা‌ধিক দোকানে ধর্মঘট শেরপুরের শ্রীবরদীতে ১’শ পিস ইয়াবাসহ যুবক গ্রেফতার সাংসদ কন্যা ডরিন এর নেতৃত্বে রোজা রেখেও দৃষ্টি প্রতিবন্ধী এক কৃষকের ধান কেটে দিয়েছে ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ করোনা সঙ্কটে আবারো অসহায় মানুষের পাশে সাংসদ কন্যা ডরিন সাভারে দুই নারী ধর্ষণের শিকার, আটক ২ ভারত বাংলাদেশ সীমান্তে তিস্তায় ডুবে একজনের মৃত্যু

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় রাস্তা নির্মানে ঠিকাদারের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ

আসাদুজ্জামান আসাদ, ব্রাহ্মণনাড়িয়া প্রতিনিধি

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উজেলার চান্দিয়ারা-ফিশিং ফার্ম” রাস্তাটি নির্মানের কাজে ঠিকাদারের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। ওই এলাকার সাধারণ মানুষ ও জনপ্রতিনিধি এই অভিযোগ করেন।

তাদের অভিযোগ, প্রথমে রাস্তা তৈরির জন্য রাস্তার মাটি কেটে যে বক্স তৈরি করা হয়েছে পরবর্তীতে সেই মাটি বালির সাথে মিশিয়ে রাস্তাতেই দেওয়া হয়েছে। শুধু অভিযোগ নয়, রাস্তায় বালির সাথে মাটি মিশানোর একটি ভিডিও প্রতিবেদক এর হাতে আছে।

এছাড়াও এক নম্বর ইটের কংক্রিটের বদলে দুই নম্বর ও তিন নম্বর ইটের কংক্রিট ব্যবহার করা হয়েছে। এলাকাবাসী আরো বলেছেন, রাস্তায় দুই ও তিন নম্বর ইটের কংক্রিট ব্যবহার করলেও রাস্তার পাশে লোক দেখানোর জন্য কিছু এক নম্বর ইট রেখে দেওয়া হয়েছে।

এবিষয়ে মজলিশপুর ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের মেম্বার মোঃ হারেজ জানান, অর্ধেক-অর্ধেক পরিমানে কংক্রিট ও বালি দেওয়ার কথা থাকলেও সেখানে নামমাত্র কংক্রিট দেওয়া হয়েছে। এই রাস্তা নির্মানে ব্যপক অনিয়ম হচ্ছে। তদন্তের মাধ্যমে এর সুষ্ঠু সুরাহা চান এই মেম্বার।

সরেজমিনে গেলে এলাকাবাসী এই প্রতিবেদককে জানান, কাজের ঠিকাদারের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরে হওয়ায় তিনি আমাদের ভয়-ভীতি দেখায় যেন আমরা এই অনিয়মের প্রতিবাদ না করি। তারা বলেন, বক্স কেটে যেই মাটি গুলো তোলা হয়েছে সেই মাটিগুলো কোথায়? প্রশ্ন এলাকাবাসীর।

মৈন্দ গ্রামের তাজুল ইসলাম বলেন, এই রাস্তার তদারকির দায়ীত্বে থাকা ইঞ্জিনিয়ার কখনো রাস্তার কাজ পরিদর্শন করার জন্য আসেনি।

মৈন্দ পশ্চিম পাড়া এলাকার চাঁন মিয়ার ছেলে রহমত খা জানান, রাস্তার বক্স খোড়ার সময় দেড় ফুট গভীর করে খোড়ে সেই মাটি আবার বালির সাথে মিশিয়ে রাস্তায় দেওয়া হয়েছে। বর্তমানেও রাস্তা খোড়লে মাটি পাওয়া যাবে।

এবিষয়ে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স আর এস কনস্ট্রাকশনের স্বত্তাধিকারী সোহেল জানান, কাজে কোন অনিয়ম হয়নি। এছাড়া বালির সাথে মাটি মিশানোর কোন প্রশ্নই আসেনা।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোঃ সাজ্জাদ হোসেন বলেন, অনিয়মের অভিযোগ পেয়ে আমরা ঠিকাদারকে চিঠি পাঠিয়েছি এবং মৌখিক ভাবে বলে দিয়েছি রাস্তার কাজের ত্রুটি সংশোধন করার জন্য।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ

Spoken English কোর্স