শুক্রবার, ২৫ জুন ২০২১, ০৪:৪৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
গাজীপুর মহানগর ২২ নং ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগের ৭২ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর আলোচনা সভা গাজীপুর মহানগরের ১৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী আব্দুস সোবাহান সকলের দোয়া চায় ব্যাংকে ঋণ থাকা অবস্থায় ব্যবসায়ীর মৃত্যু: ৯ বছর পর চাপে ভুক্তভোগী পরিবার মাগুরায় ৮ দিন পর যুবকের মস্তকবিহীন লাশের মাথা ও পা উদ্ধার গাজীপুরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্কুল কলেজ খোলার জন্য মানববন্ধন। মাগুরায় পরিত্যক্ত পুকুরে মিললো যুবকের টুকরো টুকরো লাশ বশেমুরবিপ্রবিতে শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ, স্বেচ্ছায় অব্যহতি গাজীপুরে ভোগরা বাইপাসে স্ট্রোকে আম বিক্রেতার মৃত্যু গাজীপুরে সড়ক দূর্ঘটনায় গার্মেন্টস শ্রমিকের মৃত্যু শেরপুরে নকল সোনার বারসহ ২ প্রতারক গ্রেফতার

যশোরে যানবাহন প্রবেশে বিধি নিষেধ

মীর ফারুক, যশোর থেকে

করোনা প্রতিরোধে এখন থেকে অন্য জেলার কোন পরিবহন যশোর শহরে প্রবেশ করতে পারবে না। একই সাথে শহর থেকে কোন পরিবহন বাইরেও যেতে পারবে না।

এদিকে স্থানীয় ভাবে চলাচলকারী ইজিবাইক ও রিকসাসহ সকল গাড়ী চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হবে। অ্যাম্বুলেন্স ও পন্যবাহী পরিবহন এ নিয়মের বাইরে থাকবে।

মঙ্গলবার যশোর কালেক্টরেট সভা কক্ষে অনুষ্ঠিত করোনা প্রতিরোধ সংক্রান্ত জেলা কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে সভা থেকে পুলিশ প্রশাসনকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

যশোরের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শফিউল আরিফের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন যশোর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাক্তার দিলীপ কমার রায়, সিভিল সার্জন ডাক্তার আবু শাহীন, লে. কর্নেল নেয়ামুল হালিম খান, যশোর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালের প্রতিনিধি মেজর কামরুজ্জামান, যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সালাউদ্দীন সিকদার, পৌরসভার পক্ষে বস্তি উন্নয়ন কর্মকর্তা তাসলিমা খাতুন প্রমুখ।

যশোরের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শফিউল আরিফ জানান, যশোর শহর লকডাউন বলা যাবে না। নিরাপত্তার স্বার্থে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

সভায় জানানো যশোরে করোনা রোগীর চিকিৎসার জন্য কুইন্স, ইবনে সিনা ও জেনেসিস হাসপাতাল প্রস্তুত রাখা হয়েছে। জেলা পর্যায়ে ২শ বেড প্রস্তুত রাখার নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে যেয়ে সরকারি হাসপাতালের পাশাপাশি এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এর আগে বক্ষব্যাধি হাসপাতালের ৩০ টি এবং ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট যশোর জেনারেল হাসপাতালের ১০ বেড প্রস্তুত রাখা হয়েছিল। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সালাউদ্দিন শিকদার, জেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা গিয়াস উদ্দিনসহ কমিটির নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সভায় সিদ্ধান্ত হয়, প্রয়োজনে জেলা প্রশাসক যে কোন হাসপাতাল বা ভবনকে হাসপাতাল হিসেবে ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন। নির্ধারিত তিনটি হাসপাতালকে লোকবল এবং চিকিৎসা উপকরণ দিয়ে সহায়তা প্রদানের জন্যে চিঠিও প্রেরণ করা হয়েছে।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ

Spoken English কোর্স