রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:৪৩ পূর্বাহ্ন

যৌতুক এবং আমাদের নারী সমাজ
মোহাঃ- মোফাজ্জল হুসাইন, কুমিল্লা সংবাদদাতা / ৩৯০ ভিউ
সর্বশেষ আপডেট : রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

বাংলাদেশ যৌতুক প্রথাটি সংক্রামক ব্যধির মত ছড়িয়ে পড়েছে। বরপক্ষ মনে করে কনে পক্ষের কাছে তাদের অনেক কিছু পাওনা আছে যা দিতে তারা বাধ্য।

তাই বিবাহের সময় কখনো শর্ত করে আবার কখনো বা বিবাহের পর কনের উপর চাপ প্রয়োগ করে প্রয়োজনে তাকে অমানুষিক নির্যাতন করে পাওনা আদায় করা হয়। কনের পিতা মাতা দীর্ঘ অথবা বছর কোলে পিঠে করে আদর যত্নে মানুষ করা পরম আদরের কন্যার একটু সুখের আশায় কষ্ট করে হলেও বরপক্ষের চাহিদা মিটায়।প্রয়োজনে ধারকর্জ করে।এমন কি চড়া সুদে টাকা নিয়ে বরপক্ষের এদাবী পূরন করে থাকে।

বর পক্ষের চাহিদা কোথাও সীমিত থাকতে আর কোথাও বা হয়ে ওঠে আসীম ও লাগাম ছাড়া। আর এ অর্থের যোগান দিতে না পারলে নিরপরাধ অবলা কনেটির উপর নেমে আসে নির্যাতনের স্ট্রীম রোলার।

অনেক ক্ষেত্রেই নির্যাতন সইতে না পেরে সমাজ- সংসারকে কিছু না জানিয়েই মুখ বুজে আত্মহত্যার পথ বেছে নেয় সেই কনেটি।যে অনেক আশা নিয়ে, অনেক স্বপ্ন বুকে নিয়ে সংসার করতে এসেছিলো। স্বামীর সোহাগ পেতে এসেছিলো। আবার অনেক সময় ধৈর্য ধরে আশা বুকে বেঁধে থাকলেও শেষমেষ যৌতুকের বলি হতে হয় তাকে। সংবাদ পত্র খুললে এর বাস্তব চিত্র ভেসে ওঠে আমাদের সমনে।অনেক অনেক প্রমাণ পাওয়া যাবে এমন সব ঘটনার। স্বামী বা স্বামীর আত্মীয় স্বজনের নির্মম নির্যাতনে নিহত হয়েছে কুলবধূ এমন ঘটনার অভাব নেই সমাজে। যৌতুক না দেয়ায় বধূটির গায়ে কেরোসিন ফেলে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে এমন ঘটনা ও সংবাদ পত্রে প্রকাশিত হয়েছে।

মূলত সমাজে যা ঘটে তার কিঞ্চিতই প্রকাশ হয় সংবাদ পত্রে। আর বেশির ভাগই রয়ে যায় অপ্রকাশিত। তাই প্রকাশিত এসব ঘটনা দৃষ্টে অনুমান করা যায় বিষয়টি কতভয়াবহ ও ব্যাপক আকার ধারণ করেছে আমাদের সমাজে।

 

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Shares