সোমবার, ২১ জুন ২০২১, ০১:৩৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
গাজীপুর মহানগরের ১৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী আব্দুস সোবাহান সকলের দোয়া চায় ব্যাংকে ঋণ থাকা অবস্থায় ব্যবসায়ীর মৃত্যু: ৯ বছর পর চাপে ভুক্তভোগী পরিবার মাগুরায় ৮ দিন পর যুবকের মস্তকবিহীন লাশের মাথা ও পা উদ্ধার গাজীপুরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্কুল কলেজ খোলার জন্য মানববন্ধন। মাগুরায় পরিত্যক্ত পুকুরে মিললো যুবকের টুকরো টুকরো লাশ বশেমুরবিপ্রবিতে শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ, স্বেচ্ছায় অব্যহতি গাজীপুরে ভোগরা বাইপাসে স্ট্রোকে আম বিক্রেতার মৃত্যু গাজীপুরে সড়ক দূর্ঘটনায় গার্মেন্টস শ্রমিকের মৃত্যু শেরপুরে নকল সোনার বারসহ ২ প্রতারক গ্রেফতার কাল থেকে ৭ দিনের জন্য কঠোর লকডাউন চাঁপাইনবাবগঞ্জে

রাণীনগরের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

রহিদুল ইসলাম রাইপ, নওগাঁ প্রতিনিধি

নওগাঁ রাণীনগর এর নিম্নাঞ্চল তলিয়ে গেছে কয়েক দিনের ভারী বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলে।

জেলার ছোট যমুনা ও আত্রাই নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় প্লাবিত হয়েছে রাণীনগরের বিস্তৃত নিম্ন এলাকা। আত্রাই নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়াই আত্রাইয়ের কাসিয়াবাড়ী ব্রিজ দিয়ে পানি প্রবেশ করে রাণীনগর উপজেলার বড়গাছা ইউপির নিম্মাঞ্চল প্লাবিত ও পুকুর ডুবে যাওয়ায় ভেসে গেছে মাছ। এছাড়াও ওই এলাকার আমন চাষী কৃষকদের বীজতলা ডুবে গেছে। এতে করে জনমনে চরম হতাশার সৃষ্টি হয়েছে। যে কোন সময় উপজেলার নিচু ৪টি ইউনিয়ন প্লাবিত হওয়ার আশঙ্কা করা স্তানীয়বাসী।

জানা গেছে, চলতি বর্ষা মৌসুমের শুরুতেই প্রবল বৃষ্টিপাত ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলের পানির তোড়ে আত্রাই নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় আত্রাইয়ের কাশিয়াবাড়ী স্লুইস গেট দিয়ে পানি প্রবেশ করে আত্রাইয়ের বাঁকা, জামগ্রামের ভিতর দিয়ে বয়ে আসা খাল দিয়ে রাণীনগর উপজেলার বড়গাছা ইউপির শলিয়া মাঠে পানি প্রবেশ করায় বহু পুকুর ডুবে গেছে। এতে করে পুকুরে মাছ চাষিরা ব্যাপক আর্থিক ক্ষতির সম্মুখিন হয়েছে।

অপরদিকে রাণীনগর ও আত্রাই উপজেলার সিমান্তবর্তী বেরীবাঁধ দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার না করায় ছোট যমুনার পানি বাড়তি হলেই রাণীনগর উপজেলার প্রায় ৪টি ইউনিয়ন প্লাবিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। উপজেলার শলিয়া গ্রামের পুকুর চাষী জনাব আলি মন্ডল, নুরুজ্জামান জানান, হঠাৎ করে পানি প্রবেশ করায় আমার পুকুরের সব দেশীয় প্রজাতীর মাছ বন্যার পানিতে ভেসে গেছে। এতে আমার প্রায় তিন লক্ষাধিক টাকার আর্থিক ক্ষতি হয়েছে।

রাণীনগর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ শহীদুল ইসলাম জানান, প্রবল বৃষ্টিপাতের কারণে চরম ভাবে ব্যহত হচ্ছে আমন ও আউশ ধান রোপন। এছাড়াও আত্রাইয়ের কাশিয়াবাড়ি এবং নান্দাইবাড়ি বেরিবাঁধের ঝুঁকিপূর্ন অংশ দিয়ে পানি প্রবেশ করে ফসল ও পুকুরের ক্ষতি হয়েছে। তবে নিম্মাঞ্চল থেকে পানি নেমে যাচ্ছে। এতে করে কৃষকদের তেমন একটা ক্ষতি হবে না বলে আমি আশা করছি। তবুও ক্ষতিগ্রস্থ্য কৃষকদের তালিকা করে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ বরাবর পাঠানো হবে।

রাণীনগর উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা শিল্পি রায় জানান, বন্যার পানি প্রবেশ করে উপজেলার নিম্মাঞ্চলের যে পুকুরগুলো ডুবে মাছ ভেসে গেছে তাদের তালিকা করে তৈরি অব্যাহত রয়েছে। ক্ষতিগ্রস্থ্য মৎস্য চাষীদের তালিকা করে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ বরাবর পাঠানো হবে।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ

Spoken English কোর্স