শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ০৪:৫১ অপরাহ্ন

সাভার পৌর নির্বাচনে ভোট যুদ্ধ আজ, নির্বাচনি এলাকায় কঠোর নিরাপত্তা

মো.শামীম হোসেন, সাভার (ঢাকা) প্রতিনিধি

আজ শনিবার দ্বিতীয় দফায় নির্বাচনে ভোটগ্রহণ চলছে সাভার পৌরসভায়। সকাল ৮ থেকে শুরু হয়ে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে ভোটাররা তাদের নিজেদের রায় জানাবে।

করোনা পরিস্থিতিতে বিশেষ ব্যবস্থা ছাড়াও শান্তিপূর্ণ ভোটপর্বের জন্য বেশ কয়েকটি বাড়তি পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। নির্বাচনি এলাকায় জারি করা হয়েছে কঠোর নিরাপত্তা। পুলিশের পাশাপাশি বাড়তি মোতায়েন রয়েছে ৬ প্লাটুন বিজিবি ও র‌্যাবসহ অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বিপুল সংখ্যক সদস্যরা। ভোটের পর দিন পর্যন্ত নির্বাচনী এলাকায় দায়িত্ব পালন করবেন।

এব্যাপারে সাভার মডেল থানার ওসি তদন্ত সাইফুল ইসলাম বলেন, সাভার পৌরসভা নির্বাচনে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি সন্তোষজনক। পৌরসভার ৮৪ টি কেন্দ্রের একটি কেন্দ্র‌ও ঝুঁকিপূর্ণ নয়। আমরা সবগুলো কেন্দ্রকে সমানভাবে গুরুত্ব দিয়ে নজরদারি করা হবে।

রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, আজকে এই নির্বাচনে দেশের বৃহৎ দুটি রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ এবং বিএনপির মেয়র প্রার্থীসহ তিনজন মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এদের মধ্যে আওয়ামী লীগে মনোনীত প্রার্থী নৌকা প্রতীক নিয়ে হাজী আব্দুল গনি, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে আলহাজ্ব রেফাত উল্লাহ ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী হাত পাখা প্রতীক নিয়ে মোশারফ হোসেন মেয়র পদে ভোটযুদ্ধে অংশগ্রহণ করছেন।

নারী কাউন্সিলর হিসেবে ৯ জন এবং সাধারণ আসনের কাউন্সিলর প্রার্থী রয়েছেন ৪০ জন। এর মধ্যে ২ নং ওয়ার্ডে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নজরুল ইসলাম মানিক মোল্লা কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন। এই ওয়ার্ডে কাউন্সিলর ছাড়া মেয়র ও নারী কাউন্সিলর প্রার্থীদের ভোটগ্রহণ হবে। সব মিলিয়ে ভোটযুদ্ধে নেমেছেন ৫২ জন প্রার্থী। পৌরসভার ৮৪ টি কেন্দ্রে ১ লক্ষ ৮৮ হাজার ৮৮ ভোটার তাদের নগরপিতা নির্ধারণ করবেন ইভিএমের বাটন চেপে।

সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত একটানা ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এবারের নির্বাচনে সাভারের ৯টি ওয়ার্ডে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোটগ্রহণ হবে। তাই পৌরসভার সচেতন ভোটারদের মাঝে একটু ভিন্ন আমেজ দেখা গেলেও সাধারণ ভোটাররা রয়েছেন কিছুটা শঙ্কায়। মেশিনে ভোট প্রদান করলে তার আমানত ভোটটি সঠিক প্রতীকে থাকবে কি না এ নিয়েও তাদের মনে দ্বিধা রয়েছে।

এদিকে পৌরসভা নির্বাচন উপলক্ষে শুক্রবার রাত ১২টা থেকে রবিবার দুপুর ১২টা পর্যন্ত নির্বাচনি এলাকায় ট্রাক ও পিকআপ চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে ঢাকা জেলা প্রশাসন। এ ছাড়াও শুক্রবার রাত ১২টা থেকে রবিবার দুপুর ১২টা পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট নির্বাচনি এলাকায় মোটরসাইকেল চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।
নির্বাচন সংশ্লিষ্টরা বলেন, কয়েকটি বিক্ষিপ্ত ঘটনা ছাড়া সব জায়গায় শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বিরাজ করছে। করোনা সতর্কতায় ভোটারদের স্বাস্থ্যবিধি মানার বিষয়ে কঠোর নজরদারি বাড়ানো হয়েছে।

জেলা সিনিয়র নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং অফিসার মোঃ মুনীর হোসাইন খান বলেন, সবরকম প্রস্তুতি শেষ হয়েছে। আগামীকাল (আজ) ভোটগ্রহণ সেখানকার পরিস্থিতিও শান্ত। ভোটকর্মীরা নিজেদের কাজ শুরু করে দিয়েছেন। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ৯টি ওয়ার্ডে ৯ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সার্বক্ষণিকভাবে দায়িত্ব পালন করবেন। এখন পর্যন্ত কোনো সমস্যা বা অপ্রীতিকর ঘটনার কোনো অভিযোগ আমরা পাইনি। সব ভোট হবে ইভিএমে। তিনি আরো বলেন, ইভিএমে ভোট দান স্বচ্ছ ও সহজ। নির্ভুলভাবে ভোটগ্রহণের সঠিক মাধ্যম এটি। জাল ভোট কিংবা কারচুপি করার কোনো সুযোগ নেই ইভিএমে।

সাভার পৌরসভায় মোট ভোটার সংখ্যা ১ লক্ষ ৮৮ হাজার ৮৮ জন। তন্মধ্যে মহিলা ভোটার ৯৩ হাজার ৫০১ জন ও পুরুষ ভোটার ৯৪ হাজার ৫৮৭ জন। ইভিএমে ভোটগ্রহণের দায়িত্বে রয়েছেন ৮৪ জন প্রিজাইডিং ও ৪৮০ জন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার ও ৯৬০ জন পোলিং অফিসার।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ

Spoken English কোর্স