মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০৬:২০ পূর্বাহ্ন

সীতাকুণ্ডে লকডাউনের নামে সড়ক অবরোধ করে ডাকাতির চেষ্টা, পুলিশ-গ্রামবাসী সংঘর্ষ
ডেক্স রিপোর্ট / ২০৭ ভিউ
সর্বশেষ আপডেট : মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১

চট্রগ্রামের সীতাকুণ্ড উপজেলার বার আউলিয়া এলাকায় লকডাউনের নামে গ্রাম্য রাস্তা অবরোধ করে “জিরি সুবেদার শিপ ইয়ার্ড” এ ডাকাতি প্রস্তুতির সময় সংঘবদ্ধ দূর্বিত্তদের প্ররোচনায় গ্রামবাসী পুলিশের উপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও হামলার ঘটনা ঘটে।শুক্রবার দিবাগত রাত সাড়ে ৮টার দিকে সোনাইছড়ি ইউনিয়নের ফুলতলা গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, লকডাউনকে কাজে লাগিয়ে কৌশলে একদল ডাকাতদল শিপ ইয়ার্ডে ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছে এমন সংবাদ পেয়ে সীতাকুণ্ড থানা পুলিশ গিয়ে রাস্তা থেকে ব্যারিকেড সরিয়ে দেয়। এ সময় পুলিশের সাথে দূর্বিত্তদের তর্ক-বির্তক শুরু হয় এবং ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। দূর্বিত্তরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ও ফাঁকা গুলি ছুঁড়ে এবং পুলিশের গাড়ি ভাংচুর করে।

ঘটনায় এক ওসি সহ কয়েকজন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে এবং সংঘবদ্ধ দূর্বিত্ত দলের প্ররোচনায় গ্রামবাসী ও পুলিশের উপর ইটপাটকেল নিক্ষেপের পাল্টাপাল্টি অভিযোগ উঠেছে।

গ্রামবাসীর আক্ষেপ জিরি সুবেদার কতৃপক্ষ এখানে কোটি, কোটি টাকার ব্যাবসা করলেও বর্তমানে করোনা ভাইরাসের কারণে গ্রামের খেটে খাওয়া মানুষকে কোন রকমের সহযোগীতা করেনি, এছাড়া গ্রামের রাস্তাটা তাদের গাড়ি চালিয়ে নষ্ট করলেও রাস্তাটা মেরামতের কোন উদ্যোগ নেয়নি।

এদিকে গ্রামবাসীর অভিযোগগুলো অস্বীকার করে জিরি সুবেদার শিপ ব্রেকিং ইয়ার্ডের প্রতিনিধি মোঃ মহিউদ্দিন বলেন, গ্রামের কিছু ব্যক্তি লকডাউনের নামে রাস্তা বন্ধ করে ইয়ার্ডে ডাকাতি করার প্রস্তুুতি নিচ্ছিলো, কয়েকদিন আগেও তারা দারোয়ানকে মেরে ইয়ার্ডে ডাকাতি করেছে। আর করোনাভাইরাসের জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে আমরা গ্রামবাসীর জন্য ত্রাণ সামগ্রী দিয়েছি। চিহ্নিত ইনান ডাকাত ও তার সহযোগীরা আমাদের নিকট ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করেছে।

ঘটনা সম্পর্কে জানতে চাইলে সীতাকুণ্ড থানার অফিসার ইনচার্জ ফিরোজ হোসেন মোল্লা বলেন, এলাকাবাসী বাঁশ দিয়ে রাস্তা চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছে। আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গেলে ইনান বাহিনীর ইন্দনে উত্তেজিত গ্রামবাসী আমাদের উপর পাথর ছুঁড়ে মারে।

এদিকে খবর পেয়ে রাতে ঘটনাস্থলে যান এএসপি (সীতাকুণ্ড) সার্কেল শম্পা রানী শাহা, সোনাইছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান মনির আহমেদ, বার আউলিয়া হাইওয়ে থানার এসআই সাইফুল ইসলামসহ ফৌজদারহাট পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশসহ শতাধিক পুলিশ। উক্ত ঘটনায় শিপ ইয়ার্ড মালিক ও পুলিশের পক্ষ হতে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানা যায়।

 

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Shares