বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১২:০১ অপরাহ্ন

সুনামগঞ্জে মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে মুজিবকোট ও চাদর বিতরন

হাবিব রহমান, সুনামগঞ্জ

মুজিববর্ষের প্রথম ঈদে সুনামগঞ্জের বীর মুক্তিযোদ্ধা এবং তাদের পরিবারের সাথে খুশি ভাগাভাগি করতে মুজিবকোট ও লাল সবুজ চাদর দিলেন সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসক আব্দুল আহাদ।

জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ এবং শহীদ ও মৃত মুক্তিযোদ্ধাগণের জীবিত সহধর্মীনীগণকে সম্মান জানাতে জেলা প্রশাসক একটি ব্যতিক্রম ধর্মী উদ্যোগ নিয়েছেন। মুজিববর্ষের অব্যবহিত পূর্বেই জেলার সকল জীবিত মুক্তিযোদ্ধাগণের মাপ নিয়ে বুকের ডান পাশে জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিল এর লোগো এবং বাম পাশে মুজিববর্ষের লোগো এমব্রয়ডারী করে খচিত মুজিবকোট তৈরির উদ্যোগ নেন তিনি।

আমাদের মাঝে এখন আর নেই, কিন্তু যেসব মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রীগণ জীবিত আছেন, তাদেরকে সম্মান প্রদর্শনের জন্য লাল সবুজের চাদর ও তৈরির উদ্যোগ নেন জেলা প্রশাসক। এই কাজের সক্রিয়ভাবে সাহায্য করেন জেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(সার্বিক), সকল উপজেলা নির্বাহী অফিসার, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দ, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিল- সুনামগঞ্জ ইউনিটের বীর মুক্তিযোদ্ধাগণসহ বিভিন্ন পর্যায়ের শুভাকাঙ্ক্ষীগণ। উদ্যোগটি নেয়া হয়েছিল মূলত স্বাধীনতার প্রথম প্রহর ২৬ শে মার্চে বীর মুক্তিযোদ্ধাগণের বাড়ি বাড়ি যেয়ে শুভেচ্ছা উপহার হিসেবে পৌছে তাদেরকে সম্মান জানানোর অভিপ্রায় থেকে।

কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে, সারা বিশ্বে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের সাথে সাথে বাংলাদেশেও এর বিস্তায় দেখা দেয়ায় অত্যন্ত সীমিত পরিসরে স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করতে হয়, যেকারণে উদ্যোগটি তখন বাস্তবায়ন করা যায়নি। বর্তমানে মুজিববর্ষের প্রথম ইদ- ইদুল ফিতর উপলক্ষ্যে সকল মুজিবকোট ও চাদর বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ এবং তাদের সহধর্মীনীগণকে পৌছে দেয়া হচ্ছে।

সুনামগঞ্জ জেলার সদর উপজেলায় ২৮৪ টি মুজিবকোট এবং ৩১৬ টি চাদর, ছাতক উপজেলায় ২৫১ টি মুজিবকোট এবং ১৯০ টি চাদর, দক্ষিণ সুনামগঞ্জে ৬৭ টি মুজিবকোট এবং ৫২ টি চাদর, দিরাই উপজেলায় ২৮২ টি মুজিবকোট এবং ১৬৭ টি চাদর, জামালগঞ্জ উপজেলায় ৭৮ টি মুজিবকোট এবং ৭৯ টি চাদর, ধর্মপাশা উপজেলায় ৫৭ টি মুজিবকোট এবং ৪৬ টি চাদর, দোয়ারাবাজার উপজেলায় ৩৮১ টি মুজিবকোট এবং ৩৫২ টি চাদর, শাল্লা ১২৪ টি মুজিবকোট এবং ৭৫ টি চাদর, জগন্নাথপুর উপজেলায় ৭০ টি মুজিবকোট এবং ৩৯ টি চাদর, তাহিরপুর উপজেলায় ১৩১ টি মুজিবকোট এবং ১১৮ টি চাদর এবং বিশ্বম্ভরপুর উপজেলায় ২১৫ টি মুজিবকোট এবং ১৮৩ টি চাদর সহ সমগ্র জেলায় সর্বমোট ১৯৬৩ টি মুজিবকোট এবং ১৬১৭ টি চাদর উপহার প্রদান করা হচ্ছে। বিভিন্ন উপজেলায় ইতিমধ্যে বীর মুক্তিযোদ্ধাগণকে এসকল উপহার পৌছে দেয়া হচ্ছে।

এদিকে আজ সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা ইউনিটের বীর মুক্তিযোদ্ধাগণের মাঝে প্রতীকীহিসেবে উপহার কার্যক্রমের শুভ সূচনা করেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষের এই আয়োজনে আরো উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) রাশেদ ইকবাল চৌধুরী, অতিরিক্ত জেলা ম্যজিস্ট্রেট মোহাম্মদ সুহেল মাহমুদ ,উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সুনামগঞ্জ সদর খায়রুল হুদা চপল, সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইয়াসমিন নাহার রুমা, সহকারী কমিশনার(ভূমি) সুনামগঞ্জ সদর আরিফ আদনান সহ অন্যান্য ব্যক্তিবর্গ।

জেলা প্রশাসক সুনামগঞ্জ মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ উক্ত অনুষ্ঠানে বর্তমান করোনা ভাইরাস জনিত পরিস্থিতিতে স্বশরীরে বীর মুক্তিযোদ্ধাগণের বাড়িতে যেতে না পারার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেন এবং বীর মুক্তিযোদ্ধাগণের দীর্ঘায়ু এবং সুস্বাস্থ্য কামনা করেন।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ