সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ০৬:৫৮ পূর্বাহ্ন

২১ ফ্রেরুয়া‌রি‌তে জ‌বি শিক্ষ‌কের হা‌সির সেল‌ফি ভাইরাল

জ‌বি প্র‌তি‌নি‌ধি

মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে পুষ্পস্তবক অর্পণের মধ্য দিয়ে ভাষা শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি)প‌রিবার।

এ‌দি‌কে শ্রদ্ধা নি‌বেদন শে‌ষে ফেব্রুয়ারি সকালে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে কা‌লোব্যাচ নি‌য়ে হা‌সিমু‌খে সেল‌ফি তু‌লে সামা‌জিক যোগা‌যোগ মাধ্যম ফেসবু‌কে ছ‌বি দি‌য়ে ভাইরাল হ‌য়ে‌ছেন জগন্নাথ বিশ্ব‌বিদ্যাল‌য়ের ক‌য়েকজন ‌শিক্ষক।

সামা‌জিক যোগা‌যোগ মাধ্যম ফেসবুক থে‌কে প্রাপ্ত ছ‌বি‌তে দেখা যায়, জ‌বির ভূ‌গোল ও প‌রি‌বেশ বিভা‌গের সহকারী অধ্যাপক ও সহকারী প্রক্টর নিউটন হাওলাদা‌র কা‌লোব্যাচ নি‌য়ে ক‌য়েকজন শিক্ষ‌কের সা‌থে হা‌সি মু‌খে সেল‌ফি তু‌লে‌ তা নিজ ফেসবুক প্রোফাই‌লে অাপ‌লোড ক‌রেন।

ফেসবুক থেকে পাওয়া সেই ছ‌বি‌তে কা‌লোব্যাচ নি‌য়ে অট্টহা‌সি‌তে দেখা যায়, সহকারী অধ্যাপক ও সহকারী প্রক্টর শামসুল কবীর, অাসাদুজ্জামান রিপন, ও রেজাউল ক‌রিম‌কে। এছাড়া ছ‌বি‌তে বেশ ক‌য়েকজন শিক্ষক ছি‌লেন। এদি‌কে ছ‌বির বিষয়‌টি জানাজা‌নি হলে নিউটনর হাওলার তা ফেসবুক থে‌কে স‌রি‌য়ে নেন।

 

বিষয়‌টি নি‌য়ে জান‌তে চাই‌লে সহকারী প্রক্টর ড. রেজাউল ইসলাম বলেন, শহীদ দিবসে শ্রদ্ধা প্রধান কাজ কিন্তু বাকি কাজতো আর থামায় রাখা যাবে না। এটা বেদিতে তোলা হয়নি, খাওয়ার পর তোলা হয়েছে। তবে স্ট্যাটাসটা ঠিক হয়নি।

মনোবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক কিশোর রায় বলেন, আমরা শহীদদের প্রতি অবশ্যই শ্রদ্ধা জানাই। শহীদ দিবসে এভাবে ছবি তোলা ঠিক হয়নি তারপর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেয়া ঠিক হয়নি।

সহকারী প্রক্টর শামসুল কবীর বলেন,এগুলার জন্যই ফোন দেয়া? এটার জন্য প্রশাসনে ফোন দেন। আমি কিছু বলবো না। সহকারী প্রক্টর নিউটন হাওলাদার বলেন, আমরা শহিদ মিনারে ফুল দিয়ে কার্জন হলে নাস্তা করার পর ছবি তোলা হয়। এটা আমার ঠিক হয়নি। আমি পেস্টটা ডিলেট করে দিছি। আমরা আসলে উদযাপন করেছি এমনটা না, শহিদ দিবসে হাসিমুখে ছবি তোলা যায় না।

শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ড.শামীমা ইসলাম বলেন, নিউটন কোন ফাঁকে এসে ছবি তুলছে আমি খেয়াল করেনি। কেউতো ইচ্ছা করে তোলে না। আমরা ভেতর থেকে শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা ধারণ করি। এটা আসলে ঠিক হয় নাই।

প্রক্টর ড. মোস্তফা কামাল বলেন, ভাষা শহিদদের সম্মানের জন্য ভাব গম্ভীর্জ বজায় রাখা উচিত। নিউটনের একটা ছবির বিষয় আমি জেনেছি, আমি ডিলেট করে দিতে বলেছি, সকালের নাস্তা খাওয়ার পর ছবি তুলেছিলো, কোনো হাসিমুখে ছবি তোলা হয়নি, খাওয়ার পরে দাত বের হয়েছে এমন ছবি তুলতে পারে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


ফেইসবুক পেইজ